হাড় দূর্বল হয়ে যাওয়া প্রতিরোধ

আমাদের শরীরে শিশু ও বৃদ্ধ বয়সে হাড়ের কিছু সমস্যা হতে পারে। সাধারণত বৃদ্ধ বয়সে বয়সজনিত কারণে হলেও, শিশু ও প্রাপ্তবয়স্ক অবস্থায় হাড় বেঁকে যাওয়া, নরম হয়ে যাওয়া, দুর্বল হয়ে যাওয়া ইত্যাদি হয় ডায়েটে সমস্যা থাকলে। আমাদের হাড়ের গঠন বিভিন্ন খনিজ উপাদানের সমষ্টি। তাই আমাদের ডায়েটে সেসব খনিজ উপাদানের ঘাটতি থাকলে একসময় হাড় দূর্বল হয়ে যেতে পারে।

হাড় দুর্বল বা নরম হয়ে যাওয়াকে ডাক্তারি ভাষায় বলে অস্টিওম্যালেসিয়া। এর পেছনে ভিটামিন ডি এর স্বল্পতাই মূল কারণ। ভিটামিন ডি এর ঘাটতি থাকলে আমাদের গ্রহণকৃত ক্যালসিয়াম ও ফসফরাস যা আমাদের হাড়ের মূল উপাদান তা ঠিকভাবে কাজ করতে পারে না। তাই হাড় নরম ও দূর্বল হয়ে যায়, এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে বেঁকে ও ভেঙ্গেও যেতে পারে।

শরীরে ভিটামিন ডি এর মাত্রা ঠিক করতে হবে, অবশ্যই ডায়েটের উপর জোর দিয়ে। খাদ্যে পর্যাপ্ত পরিমাণ ভিটামিন ডি গ্রহণ করার উপর জোর দিতে হবে। এছাড়া সুর্যের আলোয় যে ভিটামিন ডি রয়েছে, তাও পেতে পারেন নিয়মিত বাইরে খেলাধুলা বা সময় কাটিয়ে। এছাড়াও বিভিন্ন শারীরিক কারণে বা বড় অস্ত্রোপচারের পর অনেকের ভিটামিন ডি প্রবেশের ক্ষমতা কমে যেতে পারে। সেক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

অস্টিওম্যালেসিয়ার উপসর্গ:

১। কোন আঘাত ছাড়া শরীরের হাড় ভেঙ্গে যাওয়া।

২। ক্লান্তি, ব্যাথা, জয়েন্টে ক্রমাগত ব্যাথা, বসা বা শোয়াতে কষ্ট, ভারী কাজ করতে কষ্ট হওয়া।

৩। বাহু ও উরুর মাংস শক্তিশালী থাকবে না, হাঁটার সময় ব্যালেন্স রাখতে বেশ কষ্ট হবে।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।