৩ ধরনের ত্বকের জন্য ৩টি এগ-হোয়াইট মাস্ক

 

অল্প সময়ের মধ্যে মুখের ময়লা ও অতিরিক্ত তেল শুষে নিতে এগ-হোয়াইট বা ডিমের সাদা অংশের তুলনা নেই। ডিম এমন একটি উপকরণ যা আমাদের প্রত্যেকের বাসায়ই যেকোনো দিন পাওয়া যায়। তাই যখন মনে হল, খুবই কম ঝামেলায় আপনি আপনার ত্বকে দিতে পারেন একটি প্রফেশনাল লেভেলের হোম-স্পা ট্রিটমেন্ট।

তৈলাক্ত, শুষ্ক ও সাধারণ- আমাদের ত্বক সাধারণত এই তিনভাগে বিভক্ত। এই ৩ ধরনের ত্বকের জন্য যে ধরনের এগ-হোয়াইট মাস্ক ব্যবহার করতে পারেনঃ

তৈলাক্ত ত্বক  

উপকরণ:   ডিম ১টি, লেবুর রস ২ চা চামচ

পদ্ধতি: একটি পাত্রে ডিম ফেটে সাদা অংশটি কুসুম থেকে আলাদা করুন। এই এগ-হোয়াইটকে একটি হুইস্কের সাহায্যে নেড়ে বুদবুদ তৈরি করুন। পরে লেবুর রস মিশিয়ে নিন।

মিশ্রণটি একটি পরিষ্কার মেক-আপ ব্রাশ দিয়ে সারা মুখে লাগান। ৫-১০ মিনিট পর কুসুমগরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক ত্বক

উপকরন: ১টি ডিম, লেবুর রস ২ চা চামচ, নারকেল তেল ২ চা চামচ (নারকেল তেল শুস্ক ত্বককে নরম করতে সাহায্য করে)

পদ্ধতি: একটি পাত্রে এই উপকরণগুলো পরিমাণমতো মিশিয়ে একটি মেক-আপ ব্রাশ দিয়ে মিশ্রণটি আপনার মুখে লাগান। ১০-১৫ মিনিট পর কুসুমগরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

সাধারণ ত্বক

উপকরণ: ডিম ১টি। কর্ণ স্টার্চ ১ চা চামচ (কর্ণ স্টার্চ ত্বকের দাগ ও ময়লা দূর করে ত্বককে স্বাস্থ্যকর করে)

পদ্ধতি: পাত্রে উপকরণগুলো মিশিয়ে মুখে লাগান ও শুকিয়ে গেলে, ১০-১৫ মিনিট পর কুসুমগরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

বোনাস টিপস:  এগ হোয়াইটের সাথে টিস্যু ব্যবহার করে পিল-অফ মাস্ক তৈরি করতে পারেন। ডিমের কুসুম চুলের জন্য উপকারি, তাই বেঁচে যাওয়া ডিমের কুসুম চুলে মেখে কমপক্ষে আধা ঘণ্টা রাখতে পারেন।

 

 

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।