সব বাধা পরীক্ষা হিসেবে নিতে হবে

 

স্বনামখ্যাত অভিনেত্রী নুসরাত ইমরোজ তিশা। অভিনয়ের দ্যুতি দিয়ে দর্শকদের মন জয় করেছেন। একের পর এক ভিন্ন চরিত্রে অভিনয় করে নিজেকে নিয়ে গেছেন আলাদা একটা উচ্চতায়। নারী দিবসে একজন নারী হিসেবে বলেছেন তার বিশ্বাস, ভাবনা, মনের গভীরের একান্ত কথা।

আনন্দধারা : আপনার জীবনে আদর্শ নারী বলতে কাকে বেছে নেবেন?

নুসরাত ইমরোজ তিশা : আমার জীবনে আদর্শ নারী বলতে আমি বুঝি আমার মাকে। আমার জীবনে তার অনেক বড় অবদান রয়েছে। তাকে ছাড়া এতটা পথ আসা সম্ভব হতো না। চলার পথের বাঁকে বাঁকে আমার মাকে পেয়েছি অনেকভাবে। আমার আদর্শ আমার আইডল বলতেই মাকে ছাড়া কল্পনা করতে পারি না।

আনন্দধারা : আপনার অনুপ্রেরণার নামগুলো জানতে চাই। এতটা পথ পাড়ি দিলেন অভিনয়ে?

তিশা : আমার বাবা, মা, ভাই আমার জন্য অনেক অনুপ্রেরণার। আমার পরিবার, আমার স্বামী অবশ্যই, আমার দর্শকদের ভালোবাসা। তারা ছাড়া এতটা পথ চলা সম্ভব হতো না। প্রত্যেকে অনেক সহযোগিতা করেছেন। তার কারণে আজকের তিশা হতে পেরেছি। নতুন কুঁড়ি থেকে আমার পথচলার শুরু। অনুপ্রেরণা না থাকলে এতটা পথ পাড়ি দিতে পারতাম না।

আনন্দধারা : এতটা পথ আসতে নারী হিসেবে কোনো বাধার সম্মুখীন হয়েছেন কী?

তিশা : এক জীবনে সামনে চলতে হলে প্রতিটা মানুষকে বাধার সম্মুখীন হতে হয়। শুধু নারী হিসেবে বলব না, একজন মানুষ হিসেবে বলব- সামনে চলতে গিয়ে অনেক বাধার মুখোমুখি হতে হয়েছে। এই বাধাগুলোকে বাধা হিসেবে না নিয়ে পরীক্ষা হিসেবে নিলে কোনো সমস্যা থাকবে না। আল্লাহ আমাদের পরীক্ষার মধ্যে রাখেন। সেটা অতিক্রম করতে হয়। জীবন তো একটা পরীক্ষা মনে হয় আমার কাছে।

আনন্দধারা : একজন নারী হিসেবে আগমী ১০ বছরে বাংলাদেশকে কেথায় দেখতে চান?

তিশা : বাংলাদেশ তো এখন নারীরাই সবকিছু। বিশ্বব্যাপী নারীরা এখন সাইন করছে বিভিন্ন বিষয়ে। আমি আসলে ভবিষ্যতের কথা বলতে চাই না। ভবিষতে কী হবে এটা তো বলতে পারি না। যেমন আমার ভবিষ্যৎ কোনো পরিনকল্পনা নেই। এখন যে সময়টাতে আছি, সেটা আমি এনজয় করি। আগামীতে কী হবে সেটা জানি না। যদি বলতে হয় তাহলে বলব আমাদের নারীদের চাকরি, পড়াশোনার জায়গার অনেক বিস্তার লাভ করেছে। আরো করুক এটা চাই। আরো উন্নতি হোক। মানুষের উন্নতি হোক এটা কামনা করি। নারী আর মানুষ আরো এগিয়ে যাক সবক্ষেত্রে, দেশপ্রেম আরো বাড়ুক এটা আমার কামনা।

আনন্দধারা : এই অগ্রগতিতে কী কী বাধা রয়েছে বলে মনে করেন?

তিশা : পৃথিবী যতদিন আছে মানুষ যতদিন থাকবে এই বাধাবিপত্তি থাকবেই। এগুলোকে অতিক্রম করে এগিয়ে যেতে হবে। বারবার পরীক্ষার সম্মুখীন হতে হবে, বারবার অতিক্রম করতে হবে। এভাবেই চলতে হবে নারী বলেন আর মানুষ বলেন সবাইকে।  

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।