যত্নে রাখুন বই

অবসরে বা কাজের ফাঁকে বই পড়ার অভ্যাস আপনার। বাড়িতে, অফিসে চারদিকে তাকালে আপনি যে বইয়ের পোকা তা বুঝতে বাকি থাকে না। তবে আপনার এই প্রিয় বইগুলো পড়া শেষে কতটা যত্নে আছে? দীর্ঘদিন ধরে বই ভালো রাখতে দরকার সঠিক যত্নের। তা নাহলে আপনার এই প্রিয় বই তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যেতে পারে।

বই পড়ার ভালোবাসা থেকেই দেখা যায় অনেক বই কেনা হয়ে যায়, ফলে বাড়িতে বইয়ের সংখ্যা ক্রমেই বেড়ে চলেছে। কিন্তু বই কিনে স্তূপ করে রাখলে তো হবে না। দেখা যাবে সঠিক যত্নের অভাবে বইগুলো নষ্ট হয়ে যাবে। হয়তো বেশ কিছুদিন আগে কেনা বইটা পাতা উল্টে দেখলে পোকায় ধরেছে, মনটা বিষণ্ন হয়ে পড়ে তখন। তাই বই কেনার পর থেকেই বইয়ের যত্ন নিন।

যত্ন নেয়ার শুরুতেই আমি স্টোরিংয়ের কথায় আসি। বই দীর্ঘদিন ভালো রাখার জন্য সঠিকভাবে গুছিয়ে রাখা খুব জরুরি। বই ঘরের এমন জায়গায় রাখুন, যেখানে সরাসরি সূর্যের আলো আসে না, নাহলে বইয়ের রঙ ও লেখা হালকা হয়ে যেতে পারে। ঠাণ্ডা ও শুষ্ক রুম টেম্পারেচারে বই রাখুন। এতে ড্যাম ধরবে না। সবচেয়ে ভালো হয় যদি কাচের বুক শেলফ বানিয়ে নিতে পারেন। এতে ধুলো পড়ে বই নষ্ট হওয়ার আশঙ্কা কম। তবে সপ্তাহে অন্তত একদিন ধুলো ঝাড়তে হবে। শেলফে বই সাজানোর সময় উচ্চতা অনুযায়ী ছোট থেকে বড় সাজান। দেখতে ভালো লাগবে। আর নিতেও সুবিধা হবে। যে বইগুলো কম পড়া হয়, সেগুলো উপরের দিকে শেলফে রাখুন। আর দরকারি বইগুলো বা নিয়মিত পড়তে ভালোবাসেন এমন বই হাতের কাছের শেলফে রাখুন, নিতে সুবিধা হবে।

বই বাইন্ডিং করার সময় যে আঠা ব্যবহার করা হয় তাতে স্টার্চ থাকে। আরতা থেকে অনেক সময় বইয়ে পোকা হয়, পোকার হাত থেকে বইকে রক্ষা করতে ন্যাপথলিনের বল, শুকনো মরিচ, নিমপাতা বা ডিসইনফেকট্যান্ট জাতীয় কিছু পরিষ্কার কাপড়ে মুড়ে বুক শেলফে রাখতে পারেন। পোকার উপদ্রব কমবে।

বই ব্যবহারেও সাবধানতা অবলম্বন করা প্রয়োজন। অবাক হলেও জেনে রাখুন বই ব্যবহারেও সঠিক পদ্ধতি আছে। কয়েকটা সহজ নিয়ম মেনে চললেই দেখবেন দীর্ঘদিন বই ভালো থাকবে। বই সবসময় যত্নের সঙ্গে ব্যবহার করবেন। সবসময় পরিষ্কার ও শুকনো হাতে বই ধরবেন। বই পড়ার সময় কয়েকটা কথা মাথায় রাখা জরুরি। বই কখনই ভাঁজ করে পড়বেন না। এতে বইয়ের পাতা খুলে যাওয়ার আশঙ্কা বেশি থাকে। অনেকেরই অভ্যাস থাকে বই পড়তে পড়তে বইয়ের পাতা ভাঁজ করে রাখার। দীর্ঘদিন বইয়ের পাতা ভাঁজ করে রাখলে পাতা ছিঁড়ে যেতে পারে। বরং পাতা ভাঁজ না করে পেজ মার্কার ব্যবহার করতে পারেন। বই পড়া হয়ে গেলে যেখানে-সেখানে ফেলে রেখে না দিয়ে যেখান থেকে নিয়েছেন সেখানেই আবার যত্ন করে রাখুন। খাবার খেতে খেতে বই না পড়াই ভালো। অনেক সময় খাবার বইয়ের পাতায় পড়ে দাগ হয়ে যেতে পারে এবং পোকার উপদ্রব দেখা দেয়। বই পড়তে পড়তে চা-কপি খাওয়ার অভ্যাস আছে অনেকের, তবে সাবধান। অনেক সময় দেখা যায় অসাবধানে বইয়ের ওপরে পড়ে ভিজে যায়। ব্যাস বইটা নষ্ট হয়ে যায়। পুরনো বইয়ের পাতা ছিঁড়তে শুরু করলে আবার নতুন করে বাঁধিয়ে নেন, তাহলে বই ভালো থাকবে।

বই পড়তে ভালোবাসার সঙ্গে সঙ্গে বইয়ের প্রতি যত্নশীল হতে হবে। যাদের ধুলোয় অ্যালার্জি, তারা নিয়মিত বুক শেলফ পরিষ্কার রাখুন। বই পড়ুন, বইয়ের যত্ন নিন।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।