আমি নায়ক বা হিরো প্রথায় বিশ্বাসী নই

বর্তমান প্রজন্মের সম্ভাবনাময় তরুণ অভিনেতা হোসাইন নিরব। প্রায় এক দশক ধরে কাজ করছেন শোবিজ অঙ্গনে। শোবিজে কাজের আগ্রহ, নিজের বর্তমান অবস্থান, ভবিষ্যৎ পরিকল্পনার পাশাপাশি অন্যান্য আরো প্রশ্নের উত্তর দিতে মুখোমুখি হয়েছেন আনন্দধারার সঙ্গে।

আনন্দধারা : নাটকের বর্তমান অবস্থা সংকটাপন্ন। অভিনয়ে কেন নিজেকে যুক্ত করতে চাচ্ছেন?

 হোসাইন নিরব : নাটককে কিংবা অভিনয়কে কেন ভালোবেসে ফেলেছি, সেটা হয়তো সংজ্ঞায়িত করতে পারব না। তবে আমি অভিনয় করতে চাই-ই। তবে আমাদের নাটকের অবস্থা দিন দিন ভালো হচ্ছে। বর্তমানে সবাই বলে যে দর্শক নাটক দেখছে না, এটা আমি বিশ্বাস করি না। হয়তো দেখার প্লাটফর্ম পাল্টেছে। যারা তরুণ প্রজন্ম তারা অনলাইনে নাটক দেখছে আর যারা প্রবীণ বা মধ্যবয়স্ক তারা কিন্তু টেলিভিশন নাটক দেখছে। সবকিছু মিলিয়ে দর্শক গল্প দেখতে চান।

আনন্দধারা : ইন্ডাস্ট্রির সব মাধ্যমেই দর্শক খরা। তবুও বলছেন দর্শক আছে?

নিরব : আমাদের ইন্ডাস্ট্রিতে দর্শক খরা সেটার সঙ্গে আমি একমত নই। যখন ভালো কিছু হয়, তখন দর্শকরা ঠিকই তা দেখেন। সম্প্রতি সিনেমার কথা যদি বলি তাহলে ঢাকা অ্যাটাক, আয়নাবাজি, সাপলুডু, দর্শক কিন্তু দলেবলে হলে গিয়ে দেখেছে। আর নাটকের কথা যদি বলি, তাহলে বলব দর্শকরা কী চান সেটা আমাদের অভিনয়শিল্পী, পরিচালক অনেকেই হয়তো পরিপূর্ণভাবে বুঝতে পারি না। যার ফলে দর্শকদের সঙ্গে একটা গ্যাপ তৈরি হয়। যে কাজটি দর্শকদের চাহিদার সঙ্গে মিলে যায় বা যারা দর্শকদের চাহিদা মাথায় রেখে কাজ করেন দর্শক কিন্তু সে কাজটা লুফে নেন। সিনেমাতেও ঠিক একই বিষয় লক্ষণীয়।

আনন্দধারা : আপনার কি মনে হয় মিডিয়াতে আপনি ক্যারিয়ার গড়তে পারবেন?

নিরব : আসলে এটা খুব কঠিন একটা প্রশ্ন। ২০১২ সাল থেকে আমি মিডিয়াতে কাজ করছি। বর্তমানে আমি স্ট্রাগল করে যাচ্ছি। ২০১২ সালে বিজ্ঞাপন দিয়ে মিডিয়াতে কাজ শুরু করলেও ২০১৪ সাল থেকে আমি নাটকে নিয়মিত কাজ শুরু করি। আমার বেশিরভাগই ধারাবাহিক নাটকে কাজ করা হয়েছে। নাটকে কাজ করার পর থেকেই কিন্তু আমি বিরতিহীনভাবে কাজ করে যাচ্ছি। দর্শকদের ভালোবাসা নিয়ে ক্রমেই সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছি। তাছাড়া টেলিভিশনের পাশাপাশি নিজেকে আরো সমৃদ্ধ করার জন্য আমি নিয়মিত মঞ্চেও কাজ করছি। সর্বোপরি আমি অভিনয় চর্চার মধ্যেই রয়েছি। নিজের পরিশ্রম, নিষ্ঠা আর সততা দিয়ে কাজ করে যাচ্ছি। সেই আত্মবিশ্বাস থেকে আমি মনে করি মিডিয়াতে ক্যারিয়ার গড়তে পারব ইনশাআল্লাহ। তাছাড়া এক নাটক করে দর্শক আমাকে চিনে ফেলুক এটা আমি চাই না। আমি চাই দর্শক আমাকে ধীরে ধীরে আমার কাজগুলোর মধ্য দিয়ে আমাকে আপন করে নিক।

আনন্দধারা : মিডিয়াতে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করার জন্যই কি থিয়েটার করছেন?

নিরব : ২০১১ সালের জানুয়ারিতে আমি ‘দেশ নাটক’ নাট্যদলের সঙ্গে যুক্ত হই। থিয়েটার করলেই যে মিডিয়াতে কাজ করা যায়, তা আমার জানা ছিল না। তখন আমার ইচ্ছা ছিল আমি নাটক করব সেটা যেকোনো মাধ্যমেই হোক। সেজন্যই থিয়েটার করা। আমি কিন্তু একাগ্রচিত্তে থিয়েটারে কাজ করে যাচ্ছি। মিডিয়াতে কাজ করার উদ্দেশ্যে থিয়েটারে আসা বা থিয়েটার করা নয়। কারণ মিডিয়াতে আসার আগেই আমি থিয়েটারের একজন কর্মী।

আনন্দধারা : প্রায় এক দশক ধরে আপনি মিডিয়ার সঙ্গে জড়িত। পরবর্তী ১০ বছর পর নিজেকে কোন অবস্থানে দেখতে চান?

নিরব : শুরু থেকে যেমন করে দর্শকের ভালোবাসা পেয়ে কাজ করে যাচ্ছি, ঠিক তেমনভাবে আমি চাইব যে ভবিষ্যতে আমার কাজের মধ্য দিয়ে দর্শকের সেই ভালোবাসা অব্যাহত থাকবে। এটা আমার বিশ্বাস। প্রতিনিয়ত চর্চার মধ্য দিয়ে নিজেকে তৈরি করছি। নিজের আত্মবিশ্বাস থেকে বলতে পারি ১০ বছর পর আরো ভালো অবস্থানে নিজেকে দেখতে পাব।

আনন্দধারা : সে অবস্থানের জন্য কী করছেন বা কীভাবে নিজেকে সময় দিচ্ছেন?

নিরব : আমি থিয়েটার করছি নিজের অভিনয়কে আরো সমৃদ্ধ করার জন্য। পাশাপাশি বাসার মধ্যে নিয়মিত চর্চা তো অব্যাহত আছেই। তাছাড়া নিয়মিত কাজ করার মধ্য দিয়ে একটা অনুশীলন কিন্তু হচ্ছে। সবকিছু মিলিয়ে ধীরে ধীরে শেখার মধ্য দিয়ে আরো ভালো কিছু দর্শকদের দেয়ার চেষ্টা করে যাচ্ছি। প্রথমদিকে যখন ক্যামেরার সামনে দাঁড়াতাম, তখন কিন্তু আমি খুব নার্ভাস থাকতাম। হাত-পা কাঁপাকাঁপি শুরু হয়ে যেত। এখন কিন্তু সেটা হয় না। এখন কাজ করতে করতে নিজের প্রতি একটা আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়েছে। এখন যে কোনো একটি দৃশ্য পরিচালকের সঙ্গে শেয়ার করার মধ্য দিয়ে ভালো কিছু করার চেষ্টা করি। এখন কিন্তু ধারাবাহিক ছাড়াও বাইরে থেকে আমার কাজের জন্য ফোন আসে।

আনন্দধারা : অভিনেতা না তথাকথিত নায়ক! কীভাবে নিজেকে দেখতে চান?

নিরব : আমি নায়ক বা হিরো প্রথায় বিশ্বাসী না। আমি অভিনেতা হিসেবেই নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। সেই লক্ষ্যে বিভিন্ন চরিত্রে কাজ করছি। আর সেই কাজগুলো দর্শক ভালোভাবেই গ্রহণ করছেন। কারণ ভিন্ন চরিত্রে অভিনয়ে নতুনভাবে একটা প্রাণ পাওয়া যায়।

আনন্দধারা : কোনো অভিনেতাকে কি অনুসরণ-অনুকরণ করা হয়?

নিরব : আমার নাটকে অভিনয়ের আগ্রহ জন্মেছে মোশাররফ করিম ভাইকে দেখে। ছোটবেলা থেকে প্রচুর নাটক দেখতাম। মোশাররফ ভাইয়ের অভিনয় দেখেই সিদ্ধান্ত নিই, আমি অভিনয় করব। বর্তমানে আফরান নিশো ভাইয়ের অভিনয় আমার খুব ভালো লাগে। তাছাড়া যাদেরই অভিনয় দেখি, সবাইকে পর্যবেক্ষণ করি কিন্তু কখনই কাউকে অনুসরণ ও অনুকরণ করা হয় না। আমি নিজের স্বকীয়তায় কাজ করি।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।