বড়দিনের উপহার

খ্রিস্ট ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব হলো বড়দিন। আর উৎসব মানেই একগাদা উপহার! উপহার ছাড়া কোনো উৎসবই যেন পূর্ণতা পায় না। বিশেষ করে শিশুদের কাছে উৎসবের মূল আকর্ষণই হলো উপহার। শিশুদের জন্য উপহারসামগ্রী কিনতে রীতিমতো কাগজ-কলম নিয়ে তালিকা করতে হয়। সেসব ঝামেলা এড়াতে জেনে নিন শিশুদের জন্য বড়দিনের কিছু উপহারের খোঁজ।

চকোলেট ও কার্ড

চকোলেট এমন একটা জিনিস, শিশুদের কাছে যার আকর্ষণ কখনোই কমবে না। তাই বড়দিনে যে কোনো বয়সী শিশুর জন্য এর থেকে ভালো উপহার আর হয় না। মজাদার সব চকোলেট পেয়ে যাবেন একদম হাতের নাগালেই। আশপাশের যেকোনো সুপার শপ, শপিং কমপ্লেক্সেই পাবেন নানারকম চকোলেট। তাছাড়া আরচিস, হলমার্ক, আগোরা, স্বপ্ন, মীনাবাজারে পেতে পারেন সুন্দর সব মোড়কে সাজানো বিভিন্ন ফ্লেভারের চকোলেট বার, ক্যান্ডি ও টফি। বিভিন্ন শুভেচ্ছা বার্তাসহ নানা ডিজাইনের কার্ডও আপনি পেয়ে যাবেন এসব জায়গায় একই সঙ্গে।

ছবি আঁকা বা সংগীতচর্চার কোনো সামগ্রী

অনেক শিশুর ছবি আঁকার দিকে ঝোঁক থাকে। তাদের জন্য রঙপেন্সিল, তুলি, স্কেচবুক, কালারবুকই হবে অত্যন্ত পছন্দের উপহার। বাড়ির পাশের যেকোনো লাইব্রেরিতেই পেয়ে যাবেন এসব জিনিস। আর সংগীতচর্চায় আগ্রহী শিশুদের জন্য সবচেয়ে কাজের আর মজার উপহার হতে পারে তার আকর্ষণ আছে এমন কোনো মিউজিক্যাল ইনস্ট্রুমেন্ট তার হাতে তুলে দেয়া। শিশুর পছন্দ আর রুচি অনুযায়ী এসব ইনস্ট্রুমেন্ট কিনতে চলে যান সায়েন্স ল্যাব। সেখানের বিভিন্ন দোকানে পেয়ে যাবেন সংগীতের যাবতীয় সব যন্ত্রপাতি।

খেলনাসামগ্রী

শিশুদের উপহারের তালিকায় সবার আগে থাকতে হবে খেলাধুলার সামগ্রী। তবে যে কোনো শিশুকে উপহার দেয়ার আগেই মাথায় রাখতে হবে তার বয়সের বিষয়টি। একদম শিশুদের জন্য বারবি সেট, ডলহাউজ, টেডিবিয়ার, খেলনাগাড়ি, ট্রেন বা প্লেন সেট, লোগো সেট, ওয়াটার গান হতে পারে খুবই আকর্ষণীয় উপহার। স্কুলপড়ুয়া একটু বড় শিশুদের জন্য পাজল সেট বা রুবিক্স কিউবের মতো খেলনাগুলোও উপহার হিসেবে খুব ভালো। এখন যেহেতু শীতকাল, তাই ব্যাডমিন্টন খেলার সরঞ্জাম হতে পারে খুবই চমৎকার একটি উপহার। এছাড়া তাদের পছন্দের সুপারহিরো সম্পর্কে যদি আপনার কোনো ধারণা থেকে থাকে, তবে সেই সুপারহিরোদের কস্টিউম উপহার দিয়েও চমকে দিতে পারেন তাদের।

জামা-জুতা

বড়দিনের উপহার হিসেবে পরিধেয় কাপড় বা জুতা হতে পারে একটি চমৎকার উপহার। তবে খেয়াল রাখতে হবে, এসব জামা-জুতা যেন অবশ্যই ফ্যাশনেবল হয়। বড়দিন যেহেতু শীতেই, তাই নানারকম কালারফুল জ্যাকেট, সোয়েটার, বুট, শু, টুপি অথবা কাউবয় হ্যাট হতে পারে একেবারে ভিন্নধর্মী উপহার। এছাড়া ঘড়ি ও ব্রেসলেটও রাখতে পারেন আপনার উপহারের তালিকায়।

গল্পের বই

শিশুরা গল্প পড়তে পছন্দ করে। তাই উপহার হিসেবে গল্পের বইয়ের আকর্ষণ কখনোই কমবে না। তবে শুধু উপন্যাস বা শিক্ষামূলক বই নয়, তাদের হাতে উপহার হিসেবে তুলে দিন কিশোর-ক্ল্যাসিক সিরিজের বই এবং কমিক বই। তাহলে তারা বিনোদনের এই সোনালি শাখার আনন্দ সম্পর্কে ধারণা পাবে।

ভিডিও গেম ও সিনেমা-কার্টুনের সিডি

ভিডিও গেম খেলতে পছন্দ করে বা মুভি দেখতে পছন্দ করে এমন শিশুদের জন্য কিনতে পারেন বিভিন্ন গেম ও মুভির সিডি। কেনার আগে অবশ্যই সেই গেম বা মুভি শিশুর উপযোগী কিনা তা নিশ্চিত হতে হবে। এসব সিডি পাওয়া যাবে আপনার হাতের কাছের যেকোনো শপিং মলেই।

স্টেশনারিজ

পেন্সিল বক্স বা ব্যাগ,ওয়াটার বটল, স্কুল ব্যাগ এসব নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসও হতে পারে খুবই কাজের উপহার। কারণ বড়দিন শেষেই শুরু হবে স্কুলপড়ুয়া শিশুদের শিক্ষাজীবনের নতুন বছর। এই নতুন উপহারগুলোর মাধ্যমেই হতে পারে তাদের নতুন বছরের শুভসূচনা।

ওপরের তালিকা থেকে বেছে নিন আপনার শিশুর জন্য পছন্দের কোনো উপহার। তারপর সুন্দর রঙিন কাগজ দিয়ে পেঁচিয়ে রেখে দিন ক্রিসমাস ট্রির পাশে। কিংবা নিজেই সান্তা ক্লজ সেজে হাজির হয়ে চমকে দিন আপনার শিশুকে আর রাঙিয়ে দিন তার বড়দিনের উদযাপনকে।

কোথায় পাবেন

শিশুর জন্য বড়দিনের এসব উপহার কিনতে পারবেস হলমার্ক, আর্চিস, আইসকুল, স্বপ্ন, আগোরা ও মীনাবাজার থেকে। এছাড়া যাত্রা, আড়ংসহ নানা ফ্যাশন হাউজেও আছে বড়দিনের আয়োজন।

দরদাম

ক্রিসমাস গাছ ১ হাজার ৩৫০ থেকে ১৫ হাজার ৫০০ টাকা পর্যন্ত। কার্ড ১৫ থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত। ক্রিসমাস গাছ সাজানোর জন্য বল, তারা, সান্তা ক্লজ ঘণ্টা, রিং ৫০ থেকে ২৫০ টাকা। মোমবাতি ৪০ থেকে ৫০০ টাকা। মেয়েদের ব্যাগ ২০০ থেকে ২ হাজার টাকা। শোপিস ১৫০ থেকে ৩ হাজার ৩০০ টাকা। চকোলেট ২০০ থেকে ২ হাজার টাকা। ছবির ফ্রেম ১৮০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকা। সান্তা ক্লজের পোশাক ২ হাজার টাকা। গল্পের বই ১০০ টাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন দামের পাবেন। সিডি পাবেন ১০০ থেকে ৩৫০ টাকার মধ্যে।

 

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।