‘ছবি তুলতে ভীষণ ভালো লাগে’

হৃদয় তানভীর একজন তরুণ ফটোগ্রাফার। ভালো কাজ দিয়ে মানুষের মাঝে বেঁচে থাকতে চান। বিশ্ববিদ্যালয় জীবন থেকেই ক্যামেরা হাতে তুলে নেন তিনি। এই বছর আনন্দধারার ওয়েডিং ফটোগ্রাফির সঙ্গে ছিলেন। নিজের ফটোগ্রাফি এবং ওয়েডিং ইভেন্ট নিয়ে কথা বলেছেন

আনন্দধারা : ওয়েডিং ইভেন্ট নিয়ে আপনার অভিমত কী?

হৃদয় তানভীর : প্রথমেই ধন্যবাদ দেব আনন্দধারার সম্পাদককে আমাকে এমন একটা  সুযোগ দেয়ার জন্য। শুরু থেকেই তিনি আমাকে সব ধরনের সাপোর্ট দিয়েছেন বলেই ইভেন্টটা ভালোভাবে হয়েছে । এরপরই কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করব ড্রেস স্পন্সর, জুয়েলারি স্পন্সর, মডেল, মেকআপ আর্টিস্টদের প্রতি। আমার বিশ্বাস আগামীতেও সবাইকে এভাবে পাশে থাকবে ।

আনন্দধারা : ফটোগ্রাফিতে কেন এলেন?

হৃদয় তানভীর : ভালোলাগা থেকেই ফটোগ্রাফিতে আসা। ছোটবেলা থেকে অনেক কিছুরই স্বপ্ন দেখেছি, অনেক কিছুর পেছনে ছুটেছি। ক্রিকেটার হওয়ার স্বপ্ন ছিল অনেক, এজন্য একাডেমিতে অনুশীলনও করতাম কিন্তু কেন জানি হতে পারলাম না। তারপর নর্থ সাউথে কম্পিউটার সায়েন্স নিয়ে পড়লাম।  কিন্তু সবশেষে দেখলাম ছবি তুলতে ভীষণ ভালো লাগে

আনন্দধারা : আপনি কোন ধরনের ফটোগ্রাফি করেন?

হৃদয় তানভীর : ফ্যাশন এবং ওয়েডিং দুটিই করা হয়। কিছু ব্র্যান্ডের শ্যুট, ম্যাগাজিন শ্যুট, পোর্টফোলিও শ্যুট, ফুড ফটোগ্রাফি করা হয়েছে। সবগুলোই প্রথমত ভালোলাগা থেকেই করা। ফ্যাশন ফটোগ্রাফি সবচেয়ে ভালো লাগে। কিন্তু সব অভিজ্ঞতাই নিজেকে অনেক কিছু নতুন করে শেখাতে সাহায্য করেছে।

আনন্দধারা : বাংলাদেশে ফটোগ্রাফি নিয়ে পড়ার সুযোগ রয়েছে কোথায়?

হৃদয় তানভীর : পাঠশালা ফটোগ্রাফির জন্য বিখ্যাত। এছাড়া অনেক ভালো ভালো ফটোগ্রাফারই পার্সোনাল ওয়ার্কশপ করায়। কেউ যদি বাসায় বসে প্রাথমিক ধারণাগুলো নিতে চান, সেজন্য ইউটিউব তো রয়েছেই।

আনন্দধারা : একজন ফটোগ্রাফারের কী কী গুণাবলি থাকা দরকার?

হৃদয় তানভীর : একজন ফটোগ্রাফারকে অবশ্যই প্রেসার নিতে জানতে হবে। এছাড়া মাথা ঠা-া রেখে কাজ করার অ্যাবিলিটি থাকা জরুরি।

আনন্দধারা : আপনার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা কী?

হৃদয় তানভীর : বাংলাদেশে একটা কালচার অনেক জায়গায়ই রয়েছে- ফ্যাশন ফটোগ্রাফাররা ওয়েডিং ফটোগ্রাফারদের দেখতে পারে না। আবার ওয়েডিং ফটোগ্রাফাররাও ফ্যাশন ফটোগ্রাফারদের দেখতে পারে না। অনেকেই এই চিন্তাধারার বাইরে থাকলেও এই চিন্তা নিয়ে থাকাদের সংখ্যাও কম নয়। তাই আমার ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা বা স্বপ্ন যেটাই বলি না কেন, নিজেকে দুই সেক্টরেই প্রতিষ্ঠিত করতে চাই। আমাকে যেন বলতে না পারে ফ্যাশন ফটোগ্রাফার বা ওয়েডিং ফটোগ্রাফার। সুন্দর কাজের মাধ্যমে মানুষের মাঝে বেঁচে থাকতে চাই

যোগাযোগ : মেমোরি বাস্কেট, বাড়ি-৯১, রোড-১৪, ব্লক-জি, বসুন্ধরা আবাসিক এলাকা। ০১৮৭১৯৪৩১৪২

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।