দিনশেষে এক চিলতে হাসির আনন্দই সফলতা- জিয়াউল ফারুক অপূর্ব

শোবিজ অঙ্গনের জনপ্রিয় অভিনেতা জিয়াউল ফারুক অপূর্ব। দীর্ঘ সময়ের ক্যারিয়ারের এই পথচলায় নিজেকে নিয়ে গেছেন সফলতার শিখরে। বর্তমান শোবিজ অঙ্গনের একজন সফল অভিনেতা হিসেবে সফলতা নিয়ে নিজের ভাবনা, অবস্থান ও পরামর্শ শেয়ার করেন আনন্দধারার সঙ্গে।

আনন্দধারা : আপনার কাছে সফলতার সংজ্ঞা কী?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : সফলতা মানে স্বপ্ন পূরণ হওয়া। মানুষ যখন তার স্বপ্ন পূরণে সফল হয়, তখন সেটাই তার কাছে সফলতা। সফলতার সংজ্ঞাটা আসলে বলে বোঝানো অনেক কঠিন ব্যাপার। তার কারণ বেশিরভাগ সময়েই মানুষের জীবনে নিজের চাওয়ার চেয়েও অপ্রত্যাশিত সফলতা এসেই ধরা দেয়।

আনন্দধারা : শোবিজ অঙ্গনের একজন সফল মানুষ আপনি। তারপরও নিজের কাছে নিজেকে কতটা সফল মনে হয়?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : আমি এখনো নিজেকে সফল মনে করি না। সত্যি কথা বলতে আমরা তো মানুষ আর সেজন্য আমাদের চাহিদারও অন্ত নেই। দেখা গেল একটা স্বপ্ন পূরণ হলে আরেকটা নতুন করে স্বপ্ন দেখা শুরু হয়। মানুষের এই স্বপ্ন দেখা শেষ হয় না কখনো। তাই নিজে কতটা সফল বা কতখানি সফলতা অর্জন করলাম, সেটা কখনো অনুভব করা হয়নি।

আনন্দধারা : আপনার সফলতার পেছনে কার অবদান সবচেয়ে বেশি?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : যে কোনো কাজে সফল হতে গেলে পরিবারের সাপোর্টটা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমি বর্তমানে যেটুকু আসতে পেরেছি, তার পেছনে আমার পরিবারের সাপোর্টটা অনেক বেশি কাজ করেছে। পরিবার যদি আমাকে সেই সাপোর্টটা না দিত, তাহলে আমার এতটুকু আসাটা হয়তো কঠিন হয়ে যেত।

আনন্দধারা : সফল কোন ব্যক্তিকে নিজের আদর্শ হিসেবে মানা হয়?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : তেমন কোনো সফল ব্যক্তিকে নিজের আদর্শ হিসেবে মানা হয় না। কথায় আছে- ‘আপন ভালো তো দুনিয়া ভালো।’ কোনো সফল ব্যক্তিকে নিজের আদর্শ হিসেবে মেনে পথ চলব সেই রকম কখনো চিন্তা হয়নি। সবসময় নিজের অবস্থান থেকে ভবিষ্যতে ভালো কিছু পাওয়া এবং করার আশায় বর্তমানটাকে সুন্দরভাবে সাজানোর চেষ্টা করি।

আনন্দধারা : একজন সফল ব্যক্তি হতে হলে তার কী ধরনের গুণাবলি থাকা প্রয়োজন বলে আপনি মনে করেন?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : সফল হতে হলে একজন মানুষকে প্রথমত এবং প্রধানত অনেক বেশি ধৈর্যশীল হতে হবে। অনেকে ধৈর্য হারিয়ে এক পর্যায়ে অনেক এলোমেলো কাজ করে ফেলে। সুতরাং যে কোনো পরিস্থিতিতে সফলতার লক্ষ্যে ধৈর্যের পাশাপাশি সাহস নিয়ে একান্ত চিত্তে পরিশ্রম করে যেতে হবে এবং আশা ছাড়া যাবে না। সে ক্ষেত্রে তবেই সফলতা ধরা দেবে।

আনন্দধারা : নিজেদের সফল হিসেবে গড়ে তুলতে চাওয়া নতুনদের প্রতি আপনার পরামর্শ কী?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : সফল হওয়ার চেয়ে নিজেকে একজন সুখী মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। দিন শেষে যখন কেউ ঘুমাতে যাবে সারাটা দিন কেমন কাটল সেটা ভেবে যদি ঠোঁটের কোনায় এক চিলতে হাসি ফুটে ওঠে, তখন আমার কাছে সেই হাসির আনন্দটাকেই সফলতা মনে হয়। তার জন্য সেভাবেই নিজেকে তৈরি করা উচিত। কারণ সফলতার চাবিকাঠিটা আসলে নিজের কাছে। নিজের পরিশ্রমই একদিন সব বাঁধ ভেঙে স্বপ্নের দ্বার উন্মোচন করে দেবে।

আনন্দধারা : শোবিজ অঙ্গনের একজন সফল মানুষ হিসেবে সর্বোপরি সফলতাকে আপনি কীভাবে পরিমাপ করেন?

জিয়াউল ফারুক অপূর্ব : সফলতা সফলতাই। সফলতা আসলে পরিমাপ করার মতো নয়। সফলতা আসলে মানুষের ওপর নির্ভর করে। এটা পরিমাপ করা অনেক কঠিন। কারণ মানুষের অবস্থান, যোগ্যতা, সামর্থ্য, মেধা, পরিশ্রম, সবকিছু মিলিয়ে একেকজনের সফলতা একেক রকম। প্রত্যেকের সফলতা তার কাজ এবং নিজের ওপর নির্ভর করে।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।

Home popup