অষ্টম রেডিও এশিয়া কনফারেন্স শুরু

তিন দিনব্যাপী অষ্টম রেডিও এশিয়া কনফারেন্স এবং রেডিও সং ফেস্টিভ্যাল শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার (২৯ অক্টোবর) তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ রাজধানীর ইন্টারকন্টিনেন্টাল হোটেলে এশিয়া প্যাসিফিক ব্রডকাস্টিং ইউনিয়ন (এবিইউ) আয়োজিত এ কনফারেন্স ও ফেস্টিভ্যালের উদ্বোধন করেন।

তথ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব আব্দুল মালেকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মুরাদ হোসেন, বাংলাদেশ বেতারের মহাপরিচালক (ডিজি) নারায়ন চন্দ্র শীল, এবিইউ সচিব ড. জাভেদ মুক্তাগহী প্রমুখ। এবারের এবিসি রেডিও রাশিয়া সম্মেলনের মূল প্রতিপাদ্য হলো ‘রেডিও অল অ্যারাউন্ড আস : মোর দেন জাস্ট অ্যা মিডিয়াম’।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ এখন স্বপ্ন নয়, এটি বাস্তবে রূপ নিয়েছে। এবার প্রযুক্তির সাথে তাল মিলিয়ে বেতার শিল্প সামনে আরও এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ।

সামাজিক, মানবিক ও পারিবারিক মূল্যবোধ রক্ষায় রেডিও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে এমন মন্তব্য করে হাসান মাহমুদ আরো বলেন, ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধে রেডিওর ভূমিকা ছিল গৌরবোজ্জল। স্বাধীনতা যুদ্ধকালে বাঙালী জাতীয়তাবাদী বাহিনীর রেডিও সম্প্রচার কেন্দ্র ছিল স্বাধীন বাংলা বেতার কেন্দ্র। এই বেতার কেন্দ্র স্বাধীনতা সংগ্রাম ও জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতার ঘোষণা সম্প্রচার করার পাশাপাশি দেশের মাটিতে যুদ্ধে অংশ নিতে জনগণকে উদ্ভুদ্ধ করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ বেতার এখন বিভিন্ন উন্নয়ন ও সচেতনতামূলক অনুষ্ঠান সম্প্রচার করছে। দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতির কথা উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্ন ছিল বাংলাদেশকে সমৃদ্ধ হিসেবে গড়ে তোলা। কিন্তু জাতির প্রতিষ্ঠাতা তাঁর এই স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে পারেননি। কারণ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট তিনি ও তাঁর পরিবারের অধিকাংশ সদস্যকে হত্যা করা হয়।

আয়োজকরা বললেন, রেডিওর অর্গানগুলোকে তুলে ধরে আগামীর সম্ভাবনার দিকে আলোকপাত করা হবে। সম্মেলনে বাংলাদেশ, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড, যুক্তরাজ্য, আয়ারল্যান্ড, নেদারল্যান্ড, ফ্রান্স, জার্মানি, পর্তুগাল, মিশর রোমানিয়া, ভিয়েতনাম, তুর্কমেনিস্তান, জাপান, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইরান, মালয়েশিয়া, শ্রীলঙ্কা, নেপালসহ ২২টি দেশের ২১২ জন রেডিও এবং গণমাধ্যম ব্যক্তিত্ব অংশ নিয়েছেন। এর মধ্যে বিদেশি প্রতিনিধি রয়েছেন ৬২ জন।

১৯৬৪ সালে প্রতিষ্ঠিত এশিয়া প্যাসিফিক ব্রডকাস্টিং ইউনিয়নের বর্তমান সদস্য ৭৬ দেশের ২৭০টি ব্রডকাস্টিং সংস্থা। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ সংগঠন আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক সহযোগিতামূলক বিভিন্ন কর্মসূচির মধ্য দিয়ে এশিয়া প্যাসিফিক অঞ্চলসহ সারা বিশ্বের সম্প্রচার মাধ্যমের বিকাশের লক্ষ্যে কাজ করে যাচ্ছে।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।

Home popup