উজ্জ্বল ত্বক প্রাণবন্তু দিন

সারাদিনের কর্মব্যস্ততা শেষে নিজের রূপচর্চার প্রতি মনোযোগী হতে অনেক সময়ই ইচ্ছা করে না। তবে আপনি সুন্দর বা আপনার ত্বক সুন্দর, মসৃণ বা মোলায়েম হলেও যদি ত্বক পরিষ্কার এবং সঠিকভাবে যত্ন নেয়া না হয়, তবে অকালেই ত্বক নানা সমস্যার সম্মুখীন হয়। তাই আমাদের সবারই উচিত ত্বকের যত্ন নেয়া। নিয়মিত পরিচর্চায় ত্বক সতেজ ও সুন্দর রাখা সম্ভব।

ধুলো-ময়লা, পলিউশন, সূর্যরশ্মি, স্ট্রেস ঘুম না হওয়া অথবা ডায়েটের সমস্যা বিভিন্ন কারণে ত্বকের সমস্যা হতে পারে। আলসেমিতে দীর্ঘদিন ধরে ত্বকের যত্ন না নিলে বয়সের অনেক আগেই ত্বকে এজিংয়ের লক্ষণগুলো দেখা দিতে পারে। তাই অবহেলা না করে ত্বকের যত্ন নিন।

ত্বকের যত্নে আপনার ত্বক পরিষ্কার রাখা প্রয়োজন সবসময়। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে গোসল করে নিতে পারেন, ফ্রেশ লাগবে। মুখ ভালোভাবে ফেসওয়াশ দিয়ে ধুয়ে নিন। ত্বকের বাড়তি ধুলো-ময়লা দূর করবে। এখন ক্লিনজিং, টোনিং এবং ময়েশ্চারাইজিং রোজকার রুটিনে থাকলেও কিছু সময় ময়েশ্চার করা হয়ে ওঠে না। তাই আলস্য ত্যাগ করতে হবে। সামান্য ফেসওয়াশ হাতে নিয়ে অল্প পানি মিশিয়ে ভালোভাবে মুখে ঘষে নিন অথবা ২ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এরপর পুরো ১ মিনিট ধরে মুখে ঈষদুষ্ণ পানির ঝাপটা দিন। সপ্তাহে দু’দিন স্ক্র্যাবিং করুন। এক্ষেত্রে আগে মুখ পরিষ্কার করে স্ক্র্যাবার লাগিয়ে ২ মিনিট ঘষুন। এরপর ধুয়ে ফেলুন। মাঝে মাঝে লেবুর রস, মধু এবং বেকিং সোডা মিশিয়ে স্ক্র্যাবার হিসেবে ব্যবহার করতে পারেন। মুখ পরিষ্কার করে অবশ্যই টোনার লাগান। আঙুল দিয়ে ২ মিনিট ধরে ম্যাসাজ করে নিন। এরপর ময়েশ্চারাইজারের পালা। অল্প ময়েশ্চারাইজার নিয়ে মুখে এবং গলায় ১ মিনিট ম্যাসাজ করুন। ত্বকের জেল্লা বাড়াতে অথবা বিশেষ কোনো সমস্যার কিছু অতিরিক্ত যত্নও নেয়া প্রয়োজন।

বাড়িতে বসে ত্বকের যত্নে অল্প গরম পানিতে ২ টেবিল চামচ চিনি গুলে সেই পানি মুখে এবং গলায় লাগিয়ে রাখুন ৩ মিনিট। এবার আঙুলের সাহায্যে পুরো মুখ ও গলা ম্যাসাজ করে নিন। চিনি ত্বক নরম করতে এবং ত্বকের সমস্ত অশুদ্ধি দূর করতে সাহায্য করবে। এরপর ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ও গলা ধুয়ে ফেলুন।

* ত্বকে চটজলদি জেল্লা আনতে চাইলে সামান্য ঠাণ্ডা দুধে হলুদ গুঁড়ো মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন। ৫ মিনিট পর হালকা গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

* রোগে পোড়া ত্বকের জন্য বেসন, টকদই আর শসার রসে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন।

* ত্বক টানটান সজীব রাখতে চাইলে ডিমের সাদা অংশ ফেটিয়ে মুখে লাগিয়ে রাখুন ৫ মিনিট। এরপর মুখ ধুয়ে নিন ফেসওয়াশ দিয়ে।

* অ্যাকনে থেকে মুক্তি পেতে চাইলে পরিষ্কার মুখে সামান্য আলুর রস এবং দারচিনি গুঁড়ো মিশিয়ে লাগিয়ে ৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

* যারা বাইরে কাজ করেন তাদের রোদ-বৃষ্টি দুটো থেকেই ত্বক রক্ষার প্রয়োজন পড়ে। বাইরে বের হলে সানস্ক্রিন লোশন আর ছাতা ব্যবহারের অভ্যাস গড়ে তুলুন।

ত্বকের বিভিন্ন দাগছোপ দূর করতে লেবু কার্যকর। রোদে পোড়া দাগ দূর করতে লেবুর স্লাইস বা লেবুর রস নিয়মিত ঘষে নিলে দাগ দূর হয়। তবে সেনসেটিভ ত্বক লেবুর রসে পানি মিশিয়ে নিন। লেবুর সঙ্গে আলুর রস মিশিয়ে নিতে পারেন। আলুর রস ত্বক পরিষ্কার এবং উজ্জ্বল করতে সাহায্য করে। এতে রয়েছে ফাইবার ভিটামিন এবং মিনারেল, যা ত্বক ভালো রাখবে। এক টেবিল চামচ মসুর ডাল গুঁড়ো, এক টেবিল চামচ টমেটোর রস এবং এক চা-চামচ অ্যালোভেরা জেল মিশিয়ে মুখে লাগান। আধা ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন। মুখের ত্বকের জৌলুস বাড়াতে পাকা পেঁপের সঙ্গে মধু মিশিয়ে মুখের ত্বকে ঘষে নিন। মধু ত্বক নরম, কোমল ও উজ্জ্বল রাখতে সাহায্য করে। ত্বকের ট্যানও দূর হবে। টকদই সঙ্গে কমলা বা মালটার রস মিশিয়ে ত্বকে মেখে নিলে ত্বকের বসে পড়া দাগ-ছোপ দূর করতে সাহায্য করে।

শসা বা শসার রস ত্বকের জন্য দারুণ উপকারী। শসার মাস্ক আপনাকে দেবে গ্লোসিং স্কিন। ত্বককে হাইড্রেট করে রাখবে সবসময়। ত্বককে টার্নিং সানবার্ন র‌্যাশ থেকে দূরে রাখবে। ডার্ক সার্কেল দূর করতে কার্যকর। তৈলাক্ত ত্বকে তেল সরিয়ে অ্যাকনের হাত থেকে বাঁচায়। শসা ব্লেন্ড করে মুখে লাগিয়ে ১৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

নিম ত্বকের জন্য আশীর্বাদ, ভিটামিন ‘ই’ সমৃদ্ধ নিম তেল আপনার ত্বক মসৃণ করতে সাহায্য করে। ডার্ক স্পট দূর করে ত্বককে জীবাণুমুক্ত রাখে। নিমপাতা পানিতে ফুটিয়ে সেই পানি ছেঁকে গোসল করুন। মুখ ধোয়ার জন্য উপকারী। স্কিনের যেকোনো ইনফেকশন দূর করতে নিমের তুলনা নেই। নিমপাতা সেদ্ধ করে পেস্ট তৈরি করুন। তা ত্বকে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে ধুয়ে ফেলুন। অ্যাকনে, ব্রণ বা অনাকাক্সিক্ষত অ্যালার্জি দূর হবে।

সারাদিনের কাজ শেষে ঘরে ফিরে ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন পরিষ্কারভাবে। মুখে পানির ঝাপটা দিন বেশি করে। ভালো বোধ হবে। ত্বক সুন্দর থাকবে নিয়মিত রূপচর্চায়। সারাদিন ফ্রেশ থাকার জন্য আর ত্বকের ঔজ্জ্বল্য ধরে রাখতে সচেতন হোন।

সারাদিন নিজেকে উজ্জ্বল রাখার জন্য সকাল থেকেই প্রস্তুতি নিন। ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। রাতে মুখে জমে ওঠা অতিরিক্ত তেল ধুয়ে যাবে। যাদের অতিরিক্ত শুষ্ক ত্বক, তারা ক্লিনজিংয়ের পর ওয়াটার বেজড ময়েশ্চারাইজার মেখে নিতে পারেন। অফিসে যাওয়ার আগে হালকা মেকআপ অনেকেই ব্যবহার করেন। তার আগে অবশ্যই মুখ পরিষ্কার করে নেবেন। ক্লিনজার ব্যবহার করার আগে হাত খুব ভালো করে ধুয়ে নিন। যাতে হাতের ব্যাকটেরিয়া মুখ পর্যন্ত না পৌঁছায়। সবসময় সার্কুলার মুভমেন্ট এবং আপওয়ার্ড স্ট্রোকে ম্যাসাজ করুন। এতে ত্বক ঝুলে যাবে না। ক্লিনজার ব্যবহার করার সঙ্গে সঙ্গে মুছে ফেলবেন না। কয়েক মিনিট রেখে তারপর ধুয়ে ফেলুন। তুলার প্যাডে টোনার লাগিয়ে পুরো মুখ মুছে নিন। এবার ময়েশ্চারাইজার ব্যবহার করুন। রোদে বের হওয়ার আগে অবশ্যই এসপিএফযুক্ত সানস্ক্রিন লোশন লাগান। সারাদিনের কর্মব্যস্ততার মধ্যে যদি ত্বক অতিরিক্ত শুষ্ক বা তৈলাক্ত মনে হয়, তাহলে শসার রসে টোনার ব্যবহার করুন, ভেজা ভাব ত্বক হাইড্রেট করবে। মুখে বাড়তি তেলের সমস্যা হলে টিস্যু পেপার সঙ্গে রাখুন। যেন মাঝে মাঝেই মুখের বাড়তি তেল মুছে ফেলা সম্ভব হয়।

অফিস থেকে বাড়ি ফিরে রূপচর্চার ইচ্ছাটা না-ও থাকতে পারে। তাই ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন ঠাণ্ডা পানি দিয়ে, ত্বকে আরাম বোধ হবে। রাতে ঘুমানোর আগে ক্লিনজিং-টোনিং-ময়েশ্চারাইজিং রুটিন ফলো করুন। তার আগে মুখে কোনোরকম মেকআপ লেগে থাকলে সেটা ভালোভাবে পরিষ্কার করুন। মুখ পরিষ্কারের ক্ষেত্রে সাবানের পরিবর্তে ফেসওয়াশ বেছে নিন।

সপ্তাহে সময় বের করে ফেসপ্যাক ট্রাই করতে পারেন। ফেসপ্যাক ডেড সেল রিমুভ করে রক্ত সঞ্চালন ভালো করে। স্কিনটোন লাইট করে, চামড়া টানটান, ত্বক নরম ও মসৃণ রাখে।

* পাকা কলা চটকে নিন। এর সঙ্গে ২ টেবিল চামচ মধু। ২ টেবিল চামচ গ্লিসারিন, একটি ডিমের সাদা অংশ মিশিয়ে মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। ৩০ মিনিট পর ধুয়ে নিন ঈষদুষ্ণ পানিতে।

* একটা শসা ধুয়ে নিন। আধা কাপ টকদই ও আধা কাপ ওটমিলের সঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে মুখে ও গলায় লাগিয়ে নিন। শুকিয়ে এলে ঠাণ্ডা পানিতে ধুয়ে ফেলুন। এই প্যাক বলিরেখা কমাতে ভীষণ উপকারী, শসায় উপস্থিত সিলিকা ত্বকের টিস্যুগুলো টাইট রাখতে সাহায্য করে। ওটমিল স্ক্র্যাবার হিসেবে কাজ করবে। দই আপনার ত্বককে ময়েশ্চারাইজ করবে। ত্বকের ভেতর থেকে পুষ্টি জোগাবে।

* একটা আলু কুচি করে নিন। ২ টেবিল চামচ আপেল কুচি, ২ টেবিল চামচ টকদই, ১ চা-চামচ মধু, ১ চা-চামচ লেবুর রস, একটি ডিমের সাদা অংশ, ১ টেবিল চামচ কর্নফ্লাওয়ার একসঙ্গে ভালোভাবে মিশিয়ে মুখে লাগিয়ে নিন।

 সৌন্দর্য রক্ষায় নিয়মিত নিজের জন্য নিজেকে সময় দিন। ত্বক উজ্জ্বল-মসৃণ ও জীবাণুমুক্ত রেখে উচ্ছল দিন কাটান।

মডেল : শারমিন জাহান জুহা

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।

Home popup