কুমারিকা : সুন্দর চুলে সুন্দরীতমা

হঠাৎ চোখে চমক লাগল শুভর। পেছনে তাকিয়ে দেখে খোলা চুল উড়িয়ে হেঁটে যাচ্ছে বেলা। সবাই তাকিয়ে আছে তার ঈর্ষণীয় চুলের সৌন্দর্যে। সেদিন বেণি করে আসে, সেটিও বেশ পোক্ত হয়। দারুণ লাগে। শুভ তো বেলার চুলের প্রেমেই পাগল!

চুলের সৌন্দর্যের ওপর নির্ভর করে আপনার সার্বিক সৌন্দর্য। অনেকেই পারিবারিকভাবে সুন্দর-মসৃণ ঝলমলে চুলের অধিকারী হন। তবে যদি অযত্নে থাকে সে চুল, তা অকালে ঝরে যায়। তাই নিয়ম মেনে চুলের বাড়তি যত্ন প্রয়োজন।

চুলের বিভিন্ন সমস্যা। যেমন- চুলপড়া, খুশকি বা চুলের আগা ফেটে যাওয়া ইত্যাদি। এ ধরনের সমস্যায় আমরা কম-বেশি সবাই ভুগি। যে পণ্যটির ব্যবহার ভালো শুনছেন, তাই কিনে এনে নিজে ব্যবহার করার চেষ্টা করছেন। এতে অনেক সময় হয়তোবা কাজও দিচ্ছে, তবে সমস্যা যে একেবারে শেষ হয়ে যাচ্ছে তা নয়। হয়তো কিছুদিন বিরতি দিয়ে আবার দেখা দিচ্ছে। ব্যবহার করতে পারেন আয়ুর্বেদিক উপাদানে তৈরি পণ্য, যা আপনার চুলের ক্ষতি করবে না এবং ভেতর থেকে পুষ্টি জোগাবে।

চুলের যত্নে তেল প্রয়োজন অবশ্যই। তবে আমরা শুধু নারকেল তেল ব্যবহার না করে যদি প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি তেল ব্যবহার করি, তা চুলের জন্য আশীর্বাদ হবে। এতে আপনার চুল পড়া কমাবে, খুশকি দূর এবং চুলের আগা ফাটা রোধে সাহায্য করবে। তাই সপ্তাহে একদিন হলেও তেল লাগান। আপনি চুল ফাঁকা ফাঁকা করে তেল লাগিয়ে পরে চুলের আগাসহ পুরো চুলে লাগিয়ে নিন। তারপর কিছুক্ষণ ম্যাসাজ করে চুল আঁচড়ে বেঁধে রাখুন। এভাবে আপনি অন্যান্য কাজ সেরে ভালোভাবে হারবাল শ্যাম্পু দিয়ে চুলটাকে পরিষ্কার করে ধুয়ে ফেলুন। দেখবেন প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি তেল দিয়ে চুল ধোয়ার পর চুল কতটা ঝলমলে হয়ে যায়। যারা নিয়মিত কাজে ব্যস্ত, তারাও সপ্তাহে দু’তিনদিন রাতে চুলে তেল দিয়ে সকালে শ্যাম্পু করে নিতে পারেন। নিয়ম করে তেল দেয়া হতে থাকলে আপনি নিজেই দেখবেন ধীরে ধীরে আপনার চুল পড়া বন্ধ হয়ে যাচ্ছে এবং সঙ্গে সঙ্গে চুলের অন্যান্য সমস্যাও কেটে যাবে।

চুলের সৌন্দর্য রক্ষার জন্য প্রাচীনকাল থেকেই ব্যবহার হয়ে আসছে আমলকী, ব্রাহ্মী লতা, অ্যালোভেরা, আরো ব্যবহার করা হয় মধু ও মেহেদি। চুলের নানা সমস্যার সমাধানে প্রথম ধাপ হচ্ছে চুলটাকে পরিষ্কার রাখা। কর্মব্যস্ত দিনগুলোয় ঘরে-বাইরে আমরা সবাই ব্যস্ত কিন্তু একটু সময় নিয়ে হলেও আমাদের নিজের সৌন্দর্য রক্ষার প্রতি মনোযোগী হতে হবে।

অ্যালোভেরা

অ্যালোভেরায় আছে নানা ঔষধি গুণ। অ্যালোভেরা পেট্রোলাইটিক এনজাইম, যা চুলের মরা কোষ রিপেয়ার করে এবং এটি অনেক ভালো কন্ডিশনার, যা আপনার চুলকে করে আরো ঝলমলে। চুল বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে স্ক্যাল্পের চুলকানির সমস্যা দূর করে। অ্যালোভেরাতে আছে ভিটামিন ‘ই’ ও মিনারেল, যা চুলে ও মাথার ত্বকে আর্দ্রতা জোগায়। চুলকে করে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল। আমলকীতে আছে ভিটামিন ‘সি’ ও অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, যা চুলের গোড়া শক্ত, চুল পড়া নিয়ন্ত্রণ এবং চুলকে মজবুত করে। ব্রাহ্মী লতা চুলে জোগায় বাড়তি পুষ্টি, যা নতুন চুল বেড়ে উঠতে সাহায্য করে এবং চুলকে করে ঘন। এসব প্রাকৃতিক উপাদানের সঙ্গে নারকেলের নির্যাস দিয়ে তৈরি করা হয়েছে কুমারিকা তেল, যা নিয়মিত ব্যবহারে আপনার চুল হবে মসৃণ, সুন্দর ও ঝলমলে। চুল সুন্দর ও ঝলমলে রাখার জন্য চুলকে পরিষ্কার রাখাও জরুরি। ছুটির দিনগুলোয় আপনি চুলের যত্নে তৈরি করতে পারেন কিছু হেয়ার মাস্ক, যা ব্যবহার করতে পারেন চুলের যত্নের জন্য।

 এক কাপ অ্যালোভেরা জেল, ২ টেবিল চামচ গ্রিন টি একসঙ্গে ব্লেন্ড করে নিন। এবার এই মাস্ক চুলে লাগান। লাগানো সহজ এবং ধোয়ারও সমস্যা নেই। ৩০-৪৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

 অ্যালোভেরা জেল ৪-৫ টেবিল চামচ, ৩ টেবিল চামচ তেল এবং সঙ্গে ২ টেবিল চামচ মধু এবং ভালোভাবে মিক্স করে চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত লাগিয়ে নিন। এই চুলের প্যাক আপনার নিস্তেজ চুলকে নারিশ করবে ভেতর থেকে। ২০-২৫ মিনিট রেখে হারবাল শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

আমলকী

 আমলকী আছে এমন তেল দিয়ে চুলে ম্যাসাজ করুন। চুলকে শক্ত করে। চুল পড়া বন্ধ করে। অকালে চুল সাদা হওয়া রোধ করে আমলকী। আপনি ঘরে বসে আমলকী দিয়ে তৈরি মাস্ক ব্যবহার করতে পারেন চুলের জন্য।

 আমলকী গুঁড়ো ২ চা-চামচ গরম পানিতে গুলে নিন। ১ চা-চামচ মধু এবং ২ চা-চামচ দই মিশিয়ে চুলে মাখুন। আধাঘণ্টা পর হালকা গরম পানিতে ধুয়ে ফেলুন।

 ২ চা-চামচ করে শিকাকাই আর আমলকী গুঁড়ো নিন, এবার অল্প দই মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এরপর এই পেস্ট চুলে মেখে ১৫ মিনিট রাখুন। চুলের খুশকি দূর করতে উপকারী।

ব্রাহ্মী লতা

ব্রাহ্মী মিশ্রিত তেল চুলে ব্যবহারে চুল পড়া কমে। এটি স্ক্যাল্পে নারিশ করে। হালকা গরম তেলের ম্যাসাজ চুলের জন্য উপকারী। ব্রাহ্মী লতা প্রকৃতির এক অনন্য সৃষ্টি। এর ঔষধি গুণ চুলের জন্য দারুণ উপকারী। ব্রাহ্মী লতাকে বাকোপা মনৌরিও বলা হয়। আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরিতে ব্রাহ্মী লতা সুপরিচিত নাম, চুলের তো বটেই সঙ্গে সঙ্গে শরীরের নানা অসুখে ঔষধি হিসেবেও বেশ উপকারী। চুলপড়া কমাতে ব্রাহ্মীর উপকারিতা অনেক। স্ক্যাল্পে ব্রাহ্মী তেল ব্যবহার স্ক্যাল্প নারিশ করে চুলের মরা কোষে শক্তি জোগায়। এর ফলে চুল বাড়তে সাহায্য করে এবং নতুন চুলের জন্ম হয়। তেল চুলের জন্য উপকারী আর তা যদি প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি হয়, তাহলে তা চুলের সমস্যা সমাধানে দারুণ কার্যকর।

ব্রাহ্মী তেল স্ক্যাল্প নারিশ করে। গরম ব্রাহ্মী তেল স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করুন। এতে চুলের গোড়ায় মরা কোষে ঠিকমতো পৌঁছালে তাতে শক্তি সঞ্চয় হয়ে নতুন চুলের আবির্ভাব ঘটবে। আর চুল বাড়তে সাহায্য করবে। ব্রাহ্মী তেল স্ক্যাল্পে ম্যাসাজের ফলে শক্তি সঞ্চয়ের পাশাপাশি খুশকি দূর করে। ইচিং সমস্যা কমায় এবং চুল পড়া রোধে সাহায্য করে।

ব্রাহ্মী ট্র্যাডিশনাল রেমেডি আর সুপরিচিত চুলের ঘন আর নারিশ করার জন্য। ব্রাহ্মী পাউডার চুলে ব্যবহার করতে পারেন। ব্রাহ্মী লতা শুকিয়ে তা গুঁড়ো করে হেয়ার প্যাক এবং ঔষধি হিসেবেও ব্যবহার করা যায়। ব্রাহ্মী পাউডারের সঙ্গে তুলসী, নিম এবং আমলা গুঁড়ো মিশিয়ে প্যাক তৈরি করা হয়। আর এই প্যাক চুলে ব্যবহারে চুল ঘন হয় এবং স্ক্যাল্পে ইচিং সমস্যা কমে যায়। ব্রাহ্মী পাউডার চুলের সার্বিক স্বাস্থ্যের প্রতি নজর রাখে, চুল লম্বা ও ঘন করে। যদি নিয়মিতভাবে ব্রাহ্মী হেয়ার প্যাক ব্যবহার করেন, তাহলে লক্ষ্য করবেন নতুন চুল উঠছে। কারণ ব্রাহ্মী চুলের কোষগুলোয় রক্ষণশীলভাবে দেখভাল করে আর চুলের গোড়ায় শক্তি সঞ্চয় করে নতুন চুল উঠতে সাহায্য করে। চুল লম্বা ও ঘন করে।

ব্রাহ্মী পাউডার নিয়মিত ব্যবহারে চুলের গোড়া শক্ত করে, চুল ঘন করে চুল বাড়াতে সাহায্য করে। মাথা ঠাণ্ডা রাখে। খুশকি দূর করতেও ব্রাহ্মী তুলনাহীন। স্ক্যাল্পে নারিশ করে খুশকি দূর করে ড্রাই স্ক্যাল্প থেকে রক্ষা করে। স্ক্যাল্পে ময়েশ্চারাইজার হিসেবে কাজ করে ব্রাহ্মী পাউডার। ঘরে আপনি তৈরি করুন ব্রাহ্মী হারবাল প্যাক। প্রয়োজনীয় উপকরণ ব্রাহ্মী পাউডার, সঙ্গে অশ্বগন্ধা, তুলসী, নিম, আমলা এবং ভ্রীংরাজ। সব পাউডার একসঙ্গে মিশিয়ে ফুটানো গরম পানি দিয়ে মিক্সচার তৈরি করুন। এখন এ মিশ্রণটি সারারাত একটি টাইট বয়ামে ভরে রাখুন।

 এবার মিশ্রণটি ছেঁকে নিয়ে লিকুইড অংশ ব্যবহার করুন। শ্যাম্পু করার পর ব্যবহার করবেন প্রয়োজনমতো। সপ্তাহে একদিন ব্যবহার করুন, চুলের পরিবর্তন চোখে পড়বে।

ব্রাহ্মী পাউডার, আমলা পাউডার এবং অশ্বগন্ধা পাউডার একটি পাত্রে নিন। ভালোভাবে মিশিয়ে তাতে গরম পানি দিন। স্মুথ পেস্ট তৈরি করুন। একটু বসতে সময় দিয়ে মিশ্রণটি চুলে ব্যবহার করুন। কিছুক্ষণ রেখে শুকিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

এক কাপ পানি নিন, তার সঙ্গে এক কাপ ডাবের পানি যোগ করুন। এবার এর সঙ্গে ব্রাহ্মী আমলা পাউডার ভালোভাবে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। চুলে এই পেস্ট ব্যবহার করুন এবং তা শুকাতে দিন। শুকালে পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। কোনো শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন না।

এক টেবিল চামচ ব্রাহ্মী পাউডার, আমলা পাউডার এবং ফেনুগ্রিক পাউডার, সঙ্গে দই মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এবার ১৫ মিনিটের জন্য পেস্ট বসতে দিন এবং স্ক্যাল্পে আর চুলে লাগিয়ে ১০ থেকে ২০ মিনিট রাখুন। এবার পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। ব্রাহ্মী পাতার রসের সঙ্গে চুলের সাদাভাব চলে যায়।

প্রাকৃতিক বিশাল সৃষ্টির মধ্য থেকে রূপচর্চার উপযোগী নানা উপকরণ যা ব্যবহারে সৌন্দর্য বৃদ্ধি পায় সঙ্গে সঠিক উপায়ে যত্নে চুলের ঘনত্ব বাড়ে, চুলপড়া কমে, খুশকি দূর হয়, চুল লম্বা আর ঝলমলে দেখায়। চুলের জন্য উপযুক্ত প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি তেল ব্যবহারে চুলের সমস্যাগুলো দূর করা সম্ভব হবে। চুলকে পরিপূর্ণভাবে সুন্দর, মসৃণ ও ঝলমলে করতে প্রাকৃতিক উপাদানের বিকল্প নেই। তাই মসৃণ চুল আর ঝলমলে চুলে ঈর্ষা জাগাতে এখনই তৈরি হন।

চুলের মর্ম তারাই বোঝেন যাদের চুল ইতোমধ্যে ঝরে পড়া শুরু করেছে। চুলের ক্ষতি হওয়ার পেছনে দায়ী আমাদের দূষিত পরিবেশ ও আমাদের অবহেলা। তাছাড়া ঈদের সময় বা অন্যান্য অনুষ্ঠানকে ঘিরে আমরা প্রায়ই আমাদের চুলের ওপর অনেক স্টাইল ‘আরোপ’ করি, যা পরবর্তী সময়ে চুলের ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

এবারের ঈদের আয়োজনে বাড়তি ঝামেলা হিসেবে থাকবে রোদ। তাই এবারের ঈদে চুলের যত্নে হতে হবে বাড়তি সচেতন।

ঈদের দিন সকালে চুল ধুয়ে ফেলুন

অনেকে মনে করেন ঈদের দিনই চুল না ধুয়ে এর আগের দিন ধুলে ভালো হয়। কিন্তু যত তাড়াতাড়ি আপনি চুল ধোবেন, তত তাড়াতাড়িই চুলের আর্দ্রতা হারাবে। তাই চেষ্টা করুন ঈদের দিন সকালে শ্যাম্পু দিয়ে চুল ধুয়ে নিতে। বাড়তি কন্ডিশনার হিসেবে ঈদের আগের দিন রাতে মাথায় বাটা মেহেদি লাগিয়ে নিতে পারেন। এতে চুল সিল্কি ও পরিষ্কার দেখাবে।

বাইরে বেরোনোর আগে আবহাওয়া দেখে নিন

বর্তমানের আবহাওয়াটা অনেক বেসামাল। তাই বের হওয়ার আগে জেনে নেবেন আজ কি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে নাকি আকাশ রৌদ্রোজ্জ্বল থাকবে। যদি বৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তাহলে ব্যাগে একটি ড্রাই শ্যাম্পু নিয়ে নিতে পারেন। বৃষ্টিতে চুল উষ্কখুষ্ক হয়ে গেলে ড্রাই শ্যাম্পু চুলের মসৃণতা ফিরিয়ে আনবে।

আর যদি বাইরে কড়া রোদ থাকে, তাহলে ব্যাগে ছাতা অবশ্যই রাখুন। কারণ সূর্য থেকে আসা অতিবেগুনি রশ্মি আমাদের চুলের জন্য ভয়াবহ প্রমাণ হয়। দীর্ঘদিন রোদে পুড়ে গেলে আমাদের চুলের আগা ফাটতে শুরু করে ও লালচে হয়ে যায়। তাই মাথায় স্কার্ফ বা টুপিও পরে নিতে পারেন। লক্ষ্য থাকবে চুল যেন বেশিক্ষণ রোদে না থাকে।

তেল ব্যবহারে কার্পণ্য নয়

যেহেতু ঈদের সময় চুলকে সাজানোর প্রয়োজন হয় বেশি, তাই চুলে কেমিক্যালের ব্যবহারের মাত্রাও বেড়ে যায়। হেয়ার স্প্রে, হেয়ার জেল, হেয়ার সেটিং স্প্রে ইত্যাদি পণ্য যথাসম্ভব কম ব্যবহারের চেষ্টা করুন, কারণ এতে থাকা ক্ষতিকারক পদার্থ আপনার চুল পড়ার অন্যতম কারণ। গরমে চুলের শুষ্কতা আরো বেড়ে যায়। ফলে তেল হতে পারে একটি আদর্শ সমাধান। তেল চুলের শুষ্কভাব দূর করে, চুলের আর্দ্রতা বাড়ায়, চুলের গোড়া পরিষ্কার করে। নারকেল তেল খুবই কমন একটি উপকরণ। প্রাকৃতিক উপাদানে তৈরি তেল ব্যবহার করুন।

যদি পার্লার থেকে চুল সেট করেন, সেক্ষেত্রে বাসায় এসে অবশ্যই চুলে তেল মেখে নিন। সরাসরি চুল ধুয়ে ফেলবেন না। তেল দিলে চুল নরম হবে ও চুল বাঁধা-খোলার সময় চুল কম পড়বে। এক পেয়ালা তেল হালকা কুসুম গরম করে তালুতে ম্যাসাজ করুন। এতে তালুতে রক্ত চলাচল বাড়বে ও হেয়ার ড্রেসিংয়ের কারণে চুলে যে টান পড়েছে সেটি উপশম হবে।

চুলের প্যাক

শুধু শ্যাম্পু বা তেল নয়, চুলকে আরো আকর্ষণীয় ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল করতে হলে এতে বিভিন্ন ঘরোয়া উপকরণ দিয়ে তৈরি প্যাক লাগাতে পারেন। বাজারে হারবাল হেয়ার প্যাক পাওয়া যায় অনেক রকমের। তবে সাবধান থাকতে হবে ঘরের উপকরণ দিয়ে নিজের হাতে তৈরি করা প্যাক লাগানোই বেশি উপকারী।

প্রথমেই আপনার চুলের ধরন ও সমস্যা চিহ্নিত করুন। চুল তৈলাক্ত হলে বেশি তেল দেয়ার প্রয়োজন নেই, এতে চুল আরো তেল চিটচিটে হয়ে যাবে। তৈলাক্ত চুলের জন্য আমলকী, টকদই ও লেবুর রস অনেক কাজে দেয়।

চুলের পরিমাণ বুঝে মেহেদি পেস্টের সঙ্গে পরিমাণমতো আমলকীর রস অথবা টকদই অথবা একটি ডিম ও লেবুর রস মেখে ২০-৪৫ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন।

শুষ্ক চুলের জন্য তেলের প্রয়োজন হবে হেয়ার প্যাকে। মেহেদির সঙ্গে সামান্য নারকেল বা ক্যাস্টর অয়েল মিশিয়ে তার সঙ্গে দিতে পারেন ২-৩টি পাকা কলার পেস্ট। তাছাড়া পাকা কলা আর পেঁপের পেস্টও শুষ্ক চুলের জন্য ভালো। খুশকি ও চুল পড়া রোধ করতে আমলকী ও টকদইয়ের প্যাক বেশ উপকারী।

নিয়মমতো এসব প্যাক ব্যবহারে আপনার চুল আরো ঝলমলে ও ঈদের জন্য প্রস্তুত হয়ে উঠবে।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।

Home popup