ভার্চুয়াল প্রেম

কারো বাসায় গিয়ে আমরা আর কলিংবেল বাজাই না, টেক্সট করি, ‘আমি দরজার বাইরে’। প্রয়োজন-অপ্রয়োজনে কল করে কথা বলি না, সবকিছু হয় টেক্সটে। আস্তে আস্তে আমাদের সব কাজই ভার্চুয়াল হয়ে যাচ্ছে। প্রেমও আমরা ভার্চুয়ালি করছি। সামনাসামনি পরিচয় হওয়ার আগে এখন সবাই ফেসবুকে পরিচিত হচ্ছে। ফেসবুকে ভালোলাগা, ভালোবাসাটা তাই খুব অস্বাভাবিক কিছু না। প্রযুক্তি ও ইন্টারনেট মানুষের মধ্যের যোগাযোগ ও সম্পর্ককে নতুন একটি মাত্রা দিয়েছে। আমরা কিছু সম্পর্কের খবর জানছি, যেগুলো ইন্টারনেটে জন্ম লাভ করেছে। এই সম্পর্কগুলোর কিছু পরিণতি ভালো হতে শোনা যায়, কিছু সাইবার ক্রাইমের তালিকায় পড়ে যায়।

ভার্চুয়াল বা অনলাইন সম্পর্ক নিয়ে কথা বলছি তো এর সংজ্ঞাটা জেনে নেয়া যাক। ভার্চুয়াল, অর্থাৎ শারীরিকভাবে যা বিদ্যমান নয়, কিন্তু কিছু সফটওয়্যার ও ইন্টারনেটের সাহায্যে তৈরি হওয়া প্রেমের সম্পর্ক হলো ভার্চুয়াল প্রেম। একদম আক্ষরিক অর্থে বলতে গেলে ভার্চুয়াল প্রেমের অস্তিত্ব বাস্তবে নেই, শুধু ভার্চুয়াল জগতে আছে। কিন্তু আমরা সেই প্রেমের কথা বলছি, যার বাস্তবে অস্তিত্ব আছে, যেখানে দু’জন মানুষ ভার্চুয়াল জগতে পরিচিত হয়, প্রেমে পড়ে এবং প্রেম করে।

একভাবে দেখলে ভার্চুয়াল প্রেম কিন্তু নতুন ব্যাপার না। এখন যা অনলাইনে হচ্ছে তা আগে চিঠিতে হতো। প্রেমপত্রে ঠাসা অসংখ্য বই ইতোমধ্যে লেখা হয়ে গেছে। আমাদের মধ্যে অনেকের দাদা-দাদিরাও চিঠি আদান-প্রদান করেই প্রেম করত এক সময়। এখন আর দিনের পর দিন চিঠির জন্য অপেক্ষা করতে হয় না, সেকেন্ডের মধ্যে পৌঁছে দিই আমাদের কথাগুলো। শুধু লিখে না, ছবি ও ভিডিও বার্তা হিসেবে পাঠাচ্ছি আমরা। হাতের কাছে এত টুল থাকার কারণে অনেকের মধ্যে প্রশ্ন জাগতে পারে, ভার্চুয়াল সম্পর্কে দু’জনের মধ্যে ভালোবাসা কি আসলেই ততটা সত্য, যেমনটা সবাই ভাবে।

প্রযুক্তি যুগলদের সারাক্ষণ যোগাযোগের মধ্যে রাখলেও অনেকে মনে করছেন প্রযুক্তিই আমাদের সম্পর্কগুলোর ক্ষতি করছে। মানুষ আসলে সামনাসামনি যোগাযোগ করতে অভ্যস্ত। আরেকজনকে জানতে পারা একদিনের ব্যাপার না। দীর্ঘদিন একজন আরেকজনের সঙ্গে থেকে তার পছন্দ-অপছন্দ থেকে শুরু করে সবকিছু জানার প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়। তো যেখানে ভার্চুয়াল সম্পর্ক গড়ে উঠছে ফেসবুকের ‘ইনফো’ দেখে, সেখানে প্রকৃত ভালোবাসা হওয়াটা কি সম্ভব?

দু’জন ব্যক্তি যারা কখনো দু’জন দু’জনকে দেখেনি, তাদের মধ্যকার অনুভূতি, ভালোবাসা সত্যি হতে পারে না, এমনটা মনে করতেই পারেন অনেকে। যাদের দেখাই হয়নি, তাদের মধ্যে ভালোবাসা কীভাবে হয়! অনলাইন যুগলরা হয়তো তাদের অনুভূতি, আবেগগুলোকে ভুল ভেবে প্রেমের সম্পর্কে জড়িয়ে যাচ্ছে! কারো সঙ্গে সামনাসামনি কথা না বলে কীভাবে তাকে জানা যাবে! হ্যাঁ, এগুলো সব সত্যি হওয়ার সম্ভাবনা কিন্তু আছে। অনলাইনে মিথ্যা তথ্য দিয়ে ফেইক প্রোফাইল তৈরি করা কোনো ব্যাপারই না আজকাল। তবে যারা ভাবছেন সামনাসামনি না দেখে প্রেম করা কোনো প্রেমের মধ্যেই পড়ে না, তারা হয়তো একটু বেশি ভেবে বসছেন। যারা টেক্সটে টেক্সটে প্রেমে পড়ছেন তারা কিন্তু বেশ সময় কাটাচ্ছেন। সবাই এক রকম করে প্রেমে পড়বে না, ভালোবাসবে না। যদি ভার্চুয়াল প্রেম কারো দিন আলোকিত করে, তাহলে কেন ভার্চুয়াল প্রেমকে খারাপ হিসেবেই ধরে নিতে হবে?

প্রেমে প্রতারণা ভার্চুয়াল জগতে যেমন হতে পারে, বাস্তবের জগতেও হতে পারে। দুই ক্ষেত্রেই চোখ-কান খোলা রাখাটা জরুরি। প্রেমে পড়ার আগে একটু যাচাই করে নিলে পরে লাভ ছাড়া ক্ষতি হবে না।

মডেল : দামিনি

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।

Home popup