‘প্রেম-বিয়ে হঠাৎ করেই হয়’

 

বর্তমান সময়ের সিনেমা নায়িকাদের মধ্যে অন্যতম একজন ববি হক। নিজের মেধা, মনন আর অভিনয় দিয়ে দর্শকদের মন ছুঁয়েছেন। ঈদে মুক্তি পাওয়া ‘নোলক’ ছবি দিয়ে আবার আলোচনায় এসেছেন তিনি। দর্শকরা ছবিটা ভীষণ পছন্দ করেছেন। নোলক ছবিতে তার বিপরীতে রয়েছেন শাকিব খান। দু’জনার একসঙ্গে পাঁচ নম্বর সিনেমা। তাদের প্রতিটা ছবি দর্শকরা নিজের করে নিয়েছেন। আনন্দধারার একান্ত সাক্ষাৎকারে মন খুলে বলেছেন নতুন ছবির কথা, ইন্ডাস্ট্রির ঘুরে দাঁড়ানোর উপায়, নতুন প্রযোজনা, বিয়ে ভাবনা, বিশ্বকাপ ক্রিকেটসহ অনেক কিছু। সঙ্গে ছিলেন আনন্দধারা সম্পাদক রাফি হোসেন।

 

রাফি হোসেন : বরাবরই তোমাকে অনেক সুন্দর ও চমৎকার দেখায়। অনেক সুন্দর দেখাচ্ছে আজকেও।

ববি : আহা! অনেক অনেক ধন্যবাদ এমন সুন্দর করে বলার জন্য।

রাফি হোসেন : এখন তো ‘নোলক’ ছবি নিয়ে খুব ব্যস্ত সময় পার করছ।

ববি : অনেক ব্যস্ত, বর্তমানে ‘নোলক’ ছবিটি নিয়েই আমার সবটুকু ব্যস্ততা। আমার সবকিছুতেই এখন ‘নোলক’।

রাফি হোসেন : শাকিব খানের সঙ্গে এটা তোমার কত নম্বর ছবি?

ববি : শাকিব খানের সঙ্গে এটি আমার পঞ্চম ছবি।

রাফি হোসেন : আমরা সবাই জানি তুমি সোজাসুজি কথা বল। এখন পাঠকরাও এমনটাই পছন্দ করে।

ববি : প্রথম থেকে এটা আমার জন্য সহজ ছিল না, কিন্তু আস্তে আস্তে বিষয়টি এখন আমার কাছে স্বাভাবিক হয়েছে।

রাফি হোসেন : ইতোমধ্যে তোমার প্রযোজনায় বিজলি নামে একটি ছবি মুক্তি পেয়েছে। এখন কি প্রযোজক হিসেবে বিরতিতে আছো?

ববি : প্রথম প্রযোজনার ছবি ‘বিজলি’। প্রথমত আমি একজন অভিনয় শিল্পী। আসলে আমার অনেক কাজ একসঙ্গে পড়ে গিয়েছিল। নিজে প্রযোজনা করতে গেলে একসঙ্গে সবদিকেই ব্যস্ত থাকতে হয়। তাই অভিনেত্রী হিসেবে যে কাজগুলো রয়েছে, সেগুলো শেষ করার পর সুযোগ হলে আবার প্রযোজনায় আসব।

রাফি হোসেন : ‘বিজলি’ ছবিতে তুমি প্রধান চরিত্রে ছিলে। আবার ছবি প্রযোজনা করলে- এই রকমই ভিন্ন ধরনের চরিত্রে থাকবে?

ববি : সবসময় ছবির গল্পটাকে প্রাধান্য দিতে চাই, ভিন্নতা আনতে চাই। সব সময় একই ধরনের জিনিস তো দর্শকরা নিতে চায় না। আমাদের ইন্ডাস্ট্রি ছোট, এটা আমাদের দুর্বলতা। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন চরিত্রকে ভুল জায়গায় ভুলভাবে উপস্থাপন করা হয়। আমাদের এমন সমস্যার মুখোমুখি হয়ে কাজ করে যেতে হয়। কিন্তু সব ধরনের চরিত্র করার মতো মানুষ তো আমাদের আছে। এত কিছুর পরও আমি একজন যোদ্ধা। আমাকে কাজ করে যেতে হবে। কারণ আমি তো আমার পরিবার থেকে কোনো সহযোগিতা পাইনি।

রাফি হোসেন : কিন্তু সেটা তো এখন স্বাভাবিক?

ববি : আসলে আমার বাবাই শুধু আমাকে উৎসাহ দিতেন কিন্তু আমার মা এবং পরিবারের অন্য সদস্যরা এখনো আমার কাজগুলো মেনে নেয় না। বাবা মারা যাওয়ার পর আমি অনেক কিছু হারিয়ে ফেলেছি। আর আমি ছোট থেকেই ঘুরিয়ে-পেঁচিয়ে কথা বলা পছন্দ করি না। সব ক্ষেত্রেই যেটা ঘটে সেটা সরাসরি বলি। আবার মাঝেমধ্যে খারাপও লাগে এটা ভেবে যে, সব কথা সব জায়গায় সরাসরি বলা উচিতও না।

রাফি হোসেন : সবারই একটা নিজস্ব বৈশিষ্ট্য থাকা ভালো। ঈদে তো নোলক ছবির পাশাপাশি শাকিব খানের অন্য একটা ছবি মুক্তি পেয়েছে, এটা নিয়ে কী বলতে চাও?

ববি : একজন শিল্পী হিসেবে সবারই নিজের কাজের প্রতি শ্রদ্ধাশীল থাকা উচিত। নোলক সম্পূর্ণ মৌলিক গল্পের বড় বাজেটের একটি ছবি। আমাদের উচিত এটাকে মানুষের কাছে পৌঁছে দেয়া। যেহেতু এখন আমাদের হলের সংখ্যা কম, তাই প্রচারের মাধ্যমে দর্শকের দোরগোড়ায় আমাদের ছবি পৌঁছে দিতে হবে। তাদের বোঝাতে হবে তারা যেন হলে গিয়ে ছবি দেখেন।

রাফি হোসেন : ‘নোলক’ এবং ‘পাসওয়ার্ড’ মুক্তি পেয়েছে। দুটো ছবিতেই শাকিব খান অভিনয় করেছে। আর ‘পাসওয়ার্ড’ শাকিব খান প্রযোজিত। এ বিষয়টা তুমি কীভাবে দেখছ?

ববি : শাকিব খান একজন অনেক বড় মাপের অভিনেতা। আমার তুলনায় তিনি অনেক বেশি কাজ করেন। কিন্তু একজন সহঅভিনেতা হিসেবে তাকে তো অনেক মিস করছি। একসঙ্গে প্রচার চালাতে পারলে, সব জায়গায় যেতে পারলে আরো বেশি ভালো লাগত।

রাফি হোসেন : দুটো ছবিই তো শাকিব খানের। তাহলে কেন সে ‘নোলক’কে প্রমোট করল না?

ববি : আসলে কোন ছবিটা বেশি হিট করবে সেটা দর্শকের ওপর নির্ভরশীল। তারাই এটা ঠিক করবে। আমাদের সামাজিক মাধ্যমগুলোতে দেখেছি দর্শকরা ‘নোলক’কেই এগিয়ে রেখেছে। আমাদের হল সংখ্যা তো কম। তাছাড়াও একটা চাপ তো থাকেই। যাদের ছবি বেশি হলে মুক্তি পায়, তারা তো একটু এগিয়েই থাকেই।

রাফি হোসেন : শাকিব খানের সমস্যাটা কোথায় বুঝতে পারছি না। তুমি বল?

ববি : আসলে এটা আমিও জানি না। প্রযোজক, পরিচালকের সঙ্গে শাকিব খানের চুক্তিও হয়েছিল তিনি ১০ দিন প্রমোশনের জন্য সময় দেবেন। কিন্তু কেন এমনটা হলো জানি না।

রাফি হোসেন : শুধু বাংলাদেশে না, সারাবিশ্বে যতগুলো ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি রয়েছে, সবাই নিজের ছবি প্রমোট করে থাকে। আমাদের দেশের এদের বিষয়গুলো আমি সত্যিই বুঝতে পারি না, তুমি কী মনে কর?

ববি : শুধু নিজের প্রযোজনার ছবির প্রমোট করব আর অন্যদেরগুলো করব না তা তো হয় না। ইন্ডাস্ট্রি বাঁচিয়ে রাখার জন্য সবাইকে একসঙ্গে কাজ করে যেতে হবে।

রাফি হোসেন : ইন্ডাস্ট্রির কথা বলতে গেলে শাকিব খান সবচেয়ে জনপ্রিয়। সে একাই ইন্ডাস্ট্রিকে টানছে।

ববি : টানছে আসলে সবাই। কিন্তু উনি একজন বড় শিল্পী। আমি মনে করি, তার দায়িত্বটা আমাদের সবার থেকে আরো বেশি।

রাফি হোসেন : শাকিব খানের সঙ্গে তোমার তো পাঁচটা ছবি করা হয়ে গেল। শাকিব খানের সঙ্গে তোমার সম্পর্ক কেমন?

ববি : একটা শিল্পীর সঙ্গে আর একটা শিল্পীর যেমন সম্পর্ক হওয়া উচিত আমাদেরও তেমন। তার সঙ্গে আমার সব ছবিই ব্যবসাসফলতা ও দর্শকপ্রিয়তা পেয়েছে। ‘নোলক’ ছবিটাও দর্শকরা পছন্দ করেছে। ‘নোলকের’ গল্পটা এতই সুন্দর যে, যারা ছবিটি দেখেছে, তারা কিছুক্ষণের জন্য নিজেদেরকে পর্দার মধ্যে হিরো-হিরোইন ভাববে। হাসি-কান্না জীবনের বাস্তবতা থেকেই এটি নির্মিত।

রাফি হোসেন : এই ইন্ডাস্ট্রিতে তুমি কী আশা দেখছ?

ববি : মানুষ না খেয়ে বেঁচে থাকতে পারে। কিন্তু স্বপ্ন না থাকলে মানুষ বেঁচে থাকতে পারে না। আমিও ইন্ডাস্ট্রি নিয়ে অনেক অনেক স্বপ্ন দেখি।

রাফি হোসেন : তোমার কি মনে হয়, ইন্ডাস্ট্রি আবার ঘুরে দাঁড়াবে?

ববি : অবশ্যই ঘুরবে। কিছু ভাইরাস রয়েছে, ওগুলো মাইনাস হয়ে যাবে। আমি যখন থেকে এসেছি, তখন অনেক ভালো সময় পার করেছে ইন্ডাস্ট্রি। আমরা অনেক কঠিন সময়ের মধ্য দিয়ে এসেছি। আরিফিন শুভ, বাপ্পি, মাহিয়া মাহি- এদের যেহেতু নাম আসছে অবশ্যই তারা মানুষের কাছে পৌঁছেছে। এত কষ্ট করে করা আমাদের কাজগুলো মানুষের কাছে যাচ্ছে। বর্তমানে এত বেশি টেলিভিশন চ্যানেল, সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, ইউটিউব যেখানে সবকিছু পাওয়া যায়। আমাদের দর্শকদের কী করে বোঝাব যে আমাদের বাজেট কম। তারা তো সবই দেখতে পায়। অন্যান্য ইন্ডাস্ট্রির সঙ্গে সঙ্গে তারা আমাদের তুলনা করে। এত কঠিন সময়ের মধ্যে কতবার যে নিজেকে গড়েছি আমি নিজেও জানি না। একেবারে শূন্য থেকে বারবার শুরু করেছি। শুধু দর্শকদের ভালো কাজ দেয়ার জন্য।

রাফি হোসেন : এই শক্তিটা তুমি কোথা থেকে পাও?

ববি : উপরওয়ালার কাছ থেকে পাই। আমি হার মানতে শিখিনি কোনো অবস্থাতেই।

রাফি হোসেন : সবারই এটা মেনে চলা উচিত।

ববি : এটা একটা দেশের কালচার। তাই সবারই এটার প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থাকা উচিত।

রাফি হোসেন : ববি তুমি পাঁচটা কারণ বল, যেগুলো হলে ইন্ডাস্ট্রি উঠে দাঁড়াবে?

ববি : প্রথমত সবার ভালো হলেই আমার ভালো হবে। যেহেতু আমাদের সবাইকে একসঙ্গে কাজ করতে হয়।

রাফি হোসেন : কারো দুটো ছবি মুক্তি পেয়েছে। সেই দুটো ছবি ভালো চললে তো কোনো লস নেই। কিন্তু আসল সমস্যাটা কোথায়?

ববি : শাকিব খানের চার-পাঁচটা ছবি মুক্তি পেয়েছে একসঙ্গে। আমাদের ইন্ডাস্ট্রির জন্য এখন বেশি বেশি ছবি মুক্তি পাওয়াটা খুবই দরকার। কিন্তু একই ধরনের না, সেটা আলাদা গল্পের। দর্শক একই ধরনের জিনিস আর চায় না। এখন আর ওই সময়টা নেই যে, যা দেখাব দর্শক সেটাই দেখবে। সবাই এখন খুব সচেতন। তাছাড়া হলের অবস্থার আরো উন্নতি করা উচিত। সিনেপ্লেক্সের সংখ্যা বাড়ানো উচিত।

রাফি হোসেন : তোমার কি মনে হয় না ইউনিটির অভাব রয়েছে?

ববি : অবশ্যই একতাবদ্ধ হয়ে না থাকলেই তো মানুষ ভেঙে যায়। সেটা তো আছেই আমাদের মধ্যে।

রাফি হোসেন : আমরা এতক্ষণ যেটা নিয়ে কথা বলছিলাম, শাকিব খান তুমি যদি আমাদের অনুষ্ঠানটা দেখে থাকো, তাহলে আমরা একটা পরিবার আর আমাদের পরিবারকে বাঁচাতে হলে সবাইকে একসঙ্গে এগিয়ে যেতে হবে।

ববি : শাকিব খান তো প্রথম থেকেই নোলক ছবিটা নিয়ে খুশি ছিলেন। গল্পটা অনেক ভালো লেগেছে এসব তিনি বলেছেন। কিন্তু শেষে এসে কার প্ররোচনায় এমনটা করলেন জানি না।

রাফি হোসেন : নোলক ছবি নিয়ে বিস্তারিত বল?

ববি : নোলক আমাদের ছবি, আপনাদের ছবি। যারা এতদিন বলেছেন পরিবার নিয়ে ছবি দেখা যায় না। তাদের বলব ‘নোলক’ পরিবারের সবাইকে নিয়ে দেখার মতো ছবি। বন্ধু-বান্ধব, ছেলে-মেয়ে এক কথায় সবাই মিলে একসঙ্গে উপভোগ করার মতো একটা ছবি ‘নোলক’। বাংলাদেশের ঐতিহ্য এর সঙ্গে জড়িত। ভিন্ন গল্পের বড় বাজেটের একটা ছবি ‘নোলক’।

রাফি হোসেন : ববি তোমার বিয়ে-শাদির পরিকল্পনা নিয়ে কিছু বললে না?

ববি : আমার মনে হয় প্রেম-বিয়ে এগুলো পরিকল্পনা করে হয় না। কবে হয়তো শুনবেন হয়ে গেছে।

রাফি হোসেন : কেমন ছেলে পছন্দ?

ববি : বেশি টাকা-পয়সা না থাকলেও চলবে, একজন ভালো মনের মানুষ হলেই হবে।

রাফি হোসেন : আমরা আশা করব যেন খুব শিগগিরই তুমি তেমন একটা মানুষ পেয়ে যাও। অনেক অনেক ধন্যবাদ আমাদের সময় দেয়ার জন্য।

রাফি হোসেন : ক্রিকেট খেলা দেখা হয় নিশ্চয়?

ববি : বাংলাদেশের খেলা থাকলে আমার ভেতরে দারুণ উত্তেজনা কাজ করে। খেলার আপডেট রাখি। কিন্তু টেলিভিশনের সামনে বসে খেলা দেখতে পারি না। ভেতরে ভেতরে একটা অস্থিরতা কাজ করে।

রাফি হোসেন : কোন খেলা নিজে খেলা হয়েছে?

ববি : ছেলেদের সব খেলাই খেলেছি আমি। একটু টমবয় টাইপের ছিলাম বলে ফুটবল, ক্রিকেট সব খেলাই খেলেছি।

রাফি হোসেন : বাংলাদেশ দলের প্রিয় খেলোয়াড়ের তালিকায় প্রথমদিকে কার নাম রয়েছে?

ববি : প্রথমেই রয়েছে মাশরাফি বিন মর্তুজা। খেলার পাশাপাশি একজন দক্ষ ক্যাপ্টেন হিসেবে তাকে অনেক পছন্দ করি। অনেক বেশি মানবিক মনে হয় আমার কাছে। এছাড়া বাংলাদেশের সব খেলোয়াড়কে ভালো লাগে।

রাফি হোসেন : মাঠে বসে খেলা দেখা হয়েছে?

ববি : ওই যে বললাম একটা অস্থিরতা ঘিরে থাকে। এই কারণে সরাসরি মাঠে বসে খেলা দেখা হয়নি। তবে ক্রিকেট খেলা আমার অসম্ভব পছন্দের। নোলক ছবির প্রচারের সময়ও বাংলাদেশের জার্সি পরে প্রচারণা করেছি। প্রত্যাশা করি বাংলাদেশ বিশ্বকাপে ফাইনালে খেলবে।

অনুলিখন : রওনাক ফেরদৌস

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।

Home popup