ঈদ উপহার

ঈদ মানেই আনন্দ বা খুশি। সেই খুশিকে সবার সঙ্গে ভাগ করে নিতে পারলেই তবে ঈদের প্রকৃত আনন্দ অনুভব করা সম্ভব হয়। তাই ঈদ উৎসবকে আরো আনন্দঘন করতে প্রিয়জনদের দেয়া যেতে পারে নানারকম ঈদ উপহার। এখন দেখে নিন ঈদে প্রিয়জনদের কী উপহার দেবেন।

বাবা-মায়ের জন্য

সন্তানের ছোট্ট একটি উপহারও বাবা-মা হাসিমুখে গ্রহণ করেন। বাবাকে উপহার দিতে পারেন বিভিন্ন আরামদায়ক পোশাক যেমন : সুতির পাঞ্জাবি, ফতুয়া, লুঙ্গি। এছাড়া বাবাকে আরেকটু খুশি করতে দিতে পারেন প্রয়োজনীয় কিছু জিনিস। যেগুলো তিনি ঈদের দিন ছাড়াও সারাবছর ব্যবহার করতে পারেন যেমন : জায়নামাজ, তসবি, টুপি, আতর। আর মা, তাকে যা দেবেন তিনি তাতেই খুশি। তবে মায়ের জন্য তার পছন্দের শাড়ি উপহার দিতে পারেন। আরো দিতে পারেন ওড়না, হাতের চুড়ি, ব্যাগ, জুতা।

স্বামী-স্ত্রীর জন্য

ঈদে সব কেনাকাটার মধ্যে স্বামী-স্ত্রী দু’জন দু’জনকে সারপ্রাইজড দিতে পারেন। উপহার হতে পারে শাড়ি, গহনা, কালারফুল ব্যাগ, কসমেটিকস এবং সংসারের টুকটাক জিনিস। যেমন : ডিনার সেট, ওভেন, বেড কভার আর ছোটখাটো ফার্নিচারও হতে পারে ঈদের দিনের উপহার। আর স্ত্রী তার স্বামীকে দিতে পারেন মোবাইল সেট, প্যান্ট, শার্ট, পাঞ্জাবি, টাই, পারফিউম, বডি স্প্রে, বেল্ট, হাতঘড়ি, ট্যাব।

শিশুদের জন্য

ঈদের খুশিতে শিশুরাই বেশি আনন্দ করে। ওরাই পুরো উৎসবকে মাতিয়ে রাখে। তারা ঈদের খুশিকে বাড়িয়ে নিতে বড়দের কাছে বিভিন্ন আবদার করে। বাড়ির বড়রাও শিশুদের সেসব আবদার পূরণের চেষ্টা করেন। কিন্তু ঈদে শিশুদের কী উপহার দেবেন এমন চিন্তা অনেকেই করেন। তাদের জন্য এখানে কিছু জিনিসের কথা বলে দেয়া হলো। এগুলোই যে কোনো শিশুর জন্য সেরা উপহার হতে পারে। যেমন : ঈদে মেয়ে শিশুদের উপহার হিসেবে দেয়া যেতে পারে নানা রঙের হেয়ার ব্যান্ড, চুড়ি, বিভিন্ন খেলনা। এছাড়া আরো দিতে পারেন আরামদায়ক সুতির পোশাক। আর ছেলে শিশুদের উপহার দিতে পারেন পছন্দসই খেলনা, চকলেট বক্স, পাঞ্জাবি, শার্ট ইত্যাদি।

ভাই-বোনের জন্য

ভাইয়ের জন্য ঈদের উপহার হতে পারে বডি স্প্রে, পারফিউম, ব্রেসলেট, টি-শার্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, হাতঘড়ি, বেল্ট ইত্যাদি। আর ভাই বোনকে দিতে পারে থ্রিপিস, কুর্তা, শাড়ি, ওড়না, কসমেটিকস, কানের দুল, হাতের চুড়ি ইত্যাদি।

বন্ধুর জন্য

বন্ধু ছাড়া জীবন অচল। তাই ঈদে বন্ধুর জন্য উপহার অবশ্যই থাকতে হবে। তাহলে ঈদ আনন্দ বেড়ে যাবে বহুগুণ। কিন্তু বন্ধুকে কী উপহার দেবেন তা ভেবে পাচ্ছেন না? এখানে কিছু উপহারের কথা বলা হলো, যা ঈদে প্রিয় বন্ধুর জন্য সেরা উপহার হতে পারে। ঈদে মেয়ে বন্ধুকে উপহার দিতে পারেন ব্যাগ, পার্টস, গোল্ড অথবা সিটি গোল্ডের চুড়ি, আংটি, কানের দুল, চেন, তাছাড়া মেটাল কিংবা অন্যান্য সামগ্রীর গহনা। মেকআপ বক্স, ছোটখাটো কসমেটিকস, থ্রিপিস, বিভিন্ন শোপিস, ঈদকার্ড, ফুলের তোড়া, গল্পের বই, মগ, ফুলের টব। আর ছেলে বন্ধুদের জন্য হতে পারে ওয়ালেট, হাতঘড়ি, ব্রেসলেট, হেয়ার জেল, পেন ড্রাইভ, মডেম, বডি স্প্রে, পারফিউম, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, চাবির রিং, দেয়ালঘড়ি, সানগ্লাস, ওয়ালম্যাট।

কোথায় পাবেন

রাজধানীর বিভিন্ন শপিংমল, যেমন : বসুন্ধরা সিটি, যমুনা ফিউচার পার্ক, টোকিও স্কয়ার, রাপা প্লাজা, আনাম র‌্যাগস ও আজিজ সুপার মার্কেটে এসব উপহার কিনতে পারবেন। এছাড়া নিউমার্কেট, এলিফ্যান্ট রোড এলাকা ও বিভিন্ন ব্র্যান্ডের আউটলেটে এসব উপহার পাওয়া যাবে। যদি মাটির কোনো উপহার কিনতে চান, তাহলে চলে যেতে পারেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দোয়েল চত্বর এলাকায়। সেখানে মাটি দিয়ে বানানো চমৎকার ডিজাইনের দারুণ দারুণ উপহার সামগ্রী পাবেন।

দরদাম

শাড়ি ১ হাজার থেকে ৩ হাজার, থ্রিপিস ৮০০ থেকে ২ হাজার; পাঞ্জাবি, ফতুয়া, টি-শার্ট ৫০০ থেকে ২ হাজার; ওয়ালেট ৪০০ থেকে ৮০০; ঘড়ি ৫০০ থেকে ১৫০০; পারফিউম ও বডি স্প্রে ২০০ থেকে ১৫০০; কসমেটিকস ও গহনা ৩০০ থেকে ২ হাজার টাকা।

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।