স্বাধীনতা দিবসে‘আরজ আলী ডাকাত’

বিয়ের অনুষ্ঠান শেষে শ্বশুরবাড়ি ফেরার পথে স্বামীসহ সবাইকে হত্যা করে নববধূ সফুরাকে তুলেন নিয়ে যায় আরজ আলীর ডাকাত দল। ঘটনাচক্রে একসময় এই আরজ আলীর কাছেই আশ্রয় মেলে সফুরার। তারপর শুরু হয় তাদের দু’জনের সংসার।

এরপর ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়। সফুরা স্বামী আরজ আলীকে যুদ্ধে পাঠায়। তখন তার কোলে এক বছরের সন্তান। এক রাতে আরজ আলীর অনুপস্থিতিতে হামলা হয় সফুরার ঘরে।‘আরজ আলী ডাকাত’র একটি দৃশ্যজীবন বাঁচাতে সন্তান কোলে নিয়ে সফুরা আশ্রয় নেয় বাড়ির পেছনের এক ঝোপে। হঠাৎ তার কোলের শিশু কেঁদে ওঠে। বাঁচার তাগিদে সন্তানের মুখে চেপে ধরে সফুরা। পরই সফুরা হাত সরিয়ে দেখেন নিজ সন্তানের মৃতদেহ!

এমন হৃদয়স্পর্শী গল্পে নির্মিত হয়েছে টেলিছবি ‘আরজ আলী ডাকাত’। আসাদুজ্জামান সোহাগের রচনায় টেলিছবিটি পরিচালনা করেছেন বর্ণ নাথ। এতে অভিনয় করেছেন অভিনেতা গাজী রাকায়েত ও অভিনেত্রী ফারজানা ছবিসহ আরও অনেকে।

নির্মাতা জানান, ২০১৯ সালে পাল্টেছে সময় ও মানুষের রঙ। কিন্তু যুদ্ধ ও জীবনের গল্প এখনও চলমান। কাল থেকে কালান্তরে, যা আজকের প্রজন্ম জানতে পারে আরজ আলীর কাছ থেকে।

আজ মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৮টায় মাছরাঙা টেলিভিশনে টেলিছবি ‘আরজ আলী ডাকাত’ প্রচার হবে।

‘আরজ আলী ডাকাত’নাটকের দৃশ্যে গাজী রাকায়েত ও ফারজানা ছবি।
‘আরজ আলী ডাকাত’নাটকের দৃশ্যে গাজী রাকায়েত ও ফারজানা ছবি।
Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।