নাইট টাইম স্কিন কেয়ার রুটিন

প্রয়োজনের তাগিদে প্রতিদিনই বাইরে যেতে হয়। আর বাইরে যাওয়া মানেই ত্বকের ওপর একটা ধকল পড়া। একদম খালি মুখে তো আর বাইরে যাওয়া যায় না, আবার নো মেইকআপ মেইকআপ লুক নিতে গেলেও দেখা যায় বেশ খানিকটা মেইকআপ মুখে দিতে হয়। আর সেই সাথে রাস্তার ধুলা আর সূয্যিমামার অতি বেগুনি রশ্মিতো আছেই। ত্বক ভালো রাখা যেন একটা চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়ায়। আর সেজন্যই বাড়ি ফেরার পর প্রথম কাজ হতে হবে মুখ পরিষ্কার করা, নিজেকে পরিষ্কার করা।
পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতার উপরিতো আসল সৌন্দর্যটা নির্ভর করে। প্রতিটা মানুষেরই নিজেকে গোছানোর একটা রুটিন থাকে, যা সে মেনে চলে। ত্বক পরিচ্ছন্নতার ক্ষেত্রেও রুটিন ফলো করতে হয়, আর তাতে করেই সুন্দর আর সুস্থ ত্বকের আশা করা যায়। আজ আমরা কথা বলবো, নাইট টাইম স্কিন কেয়ার রুটিন নিয়ে।
১। বাড়ি ফেরার পর সবার আগে মুখের মেইকআপ তুলে নিতে হবে। এজন্য প্রথমে ভালো কোনো মেইকআপ রিমুভার, অথবা নারকেল তেল কিংবা অলিভ অয়েল ব্যবহার করতে পারেন। তবে যাদের ত্বক অয়েলি তারা তেল ব্যবহার করবেন না। মেইকআপ রিমুভার ইউজ করলে কটন প্যাড দিয়ে মুখ মুছে নিন, আর তেল দিয়ে পুরা মুখ ভালো ভাবে ম্যাসাজ করে টিস্যু দিয়ে মুছে নিন।
২। এরপর মাইসিলার ক্লিনজিং ওয়াটার দিয়ে মুখের অবশিষ্ট ময়লা মুছে নিন। এই ক্লিনজিং ওয়াটার এখন অত্যন্ত জনপ্রিয় একটি জিনিস। বাজারে অনেক ব্র্যান্ডের ক্লিনজিং ওয়াটার পাওয়া যায়, আপনি আপনার ত্বকের ধরণ অনুযায়ী একটা বাছাই করে নিন।
৩। মুখ মুছে নিন টিস্যু দিয়ে, তারপর ভালো কোনো ক্রিম কিল্নজার দিয়ে মুখ কিছুক্ষন ম্যাসাজ করে নিন। ম্যাসাজ হয়ে গেলে কুসুম গরম পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।
৪। তারপর ভালো মানের কোনো ফেইসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন।
এইতো গেলো মুখ পরিষ্কারের কথা। এবার আসুন মুখে পুষ্টি যোগানের কথা বলি। মুখ ভালো করে মুছে নিন, তবে অবশ্যই টাওয়াল দিয়ে মুখ জোরে ঘষবেন না। ত্বকের ধরণ অনুযায়ী টোনার নিন, অল্প পরিমানে টোনার মুখে বুলিয়ে নিন। এরপর সাধারণ মইশ্চেরাইজারের চেয়ে একটু বেশি মোয়েশ্চারড কোনো ক্রিম মুখে মেখে নিন। কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে ভালো মানের কোনো নাইট ক্রিম লাগান, চোখের নিচে দিন আন্ডার আই ক্রিম। তবে অবশ্যই এই ক্রিমগুলো ত্বকের ধরন অনুযায়ী বাছাই করতে হবে, যাদের ত্বক তৈলাক্ত তারা তেলবিহীন প্রোডাক্ট নিন, আর যাদের শুষ্ক, তারা হেভি ক্রিম বেইজড প্রোডাক্ট নিন। বিছানায় যাওয়ার আগে অন্তত দুই গ্লাস পানি পান করুন। এরপর ঠোঁটে দিন ভ্যাসলিন। মুখে এতো কিছু ব্যবহার করার সাথে সাথে গলায় এগুলো ব্যবহার করুন। আমরা অনেকেই গলায় কিছু ব্যবহার করি না, কিন্তু ভুলে যাই যে গলার ত্বক থেকে মুখের ত্বক আলাদা হলে দেখতে ভালো লাগবে না।
এসব শেষ হলে, হাতে আর পায়ে ভালো মতো লোশন দিয়ে নিন। পায়ের পাতায় ফুট ক্রিম দিন, আর হাতের কব্জিতে হ্যান্ড ক্রিম মেখে নিন। এরপর শান্তিতে একটা ঘুম দিন পরের দিন আরো সৌন্দর্য আর আত্মবিশ্বাসের সাথে নিজেকে আয়নায় দেখার জন্য।
 

Anonymous এর ছবি
CAPTCHA
এই প্রশ্নটি আপনি একজন মানব ভিজিটর কিনা তা যাচাই করার জন্য এবং স্বয়ংক্রিয় স্প্যাম জমাগুলি প্রতিরোধ করার জন্য।